ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: নিরাপত্তা নিয়ে গোপন বৈঠকে বসলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল৷ উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রসচিব এ কে ভাল্লা ও গোয়েন্দা দফতরের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা৷

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে খবর এটি রুটিন বৈঠক৷ তবে বিশেষ কিছু তথ্য ও বিষয় নিয়ে আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা৷ এর আগে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের দায়িত্ব পেয়েই নিরাপত্তার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে বৈঠক করেন অমিত শাহ।

দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার বিষয়ে বৈঠক করেন অমিত শাহ। ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী জি কিষাণ রেড্ডি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব রাজীব গৌবা। এদিন দিল্লিতে স্বরাষ্ট্র দফতরের কার্যালয়ে এই উচ্চপর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ দুই ঘন্টা ধরে চলে ওই বৈঠক।

রবিবারই বিদেশমন্ত্রক জানায়, ২,০৫০ বারেরও বেশিবার অকারণে যুব্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান, যাতে ২১ জন ভারতীয় নাগরিকদের মৃত্যু হয়েছে। আমরা বারবার পাকিস্তানকে বলেছি ২০০৩ যুদ্ধবিরতি সমঝোতা মেনে তাদের সেনাদের নিয়ন্ত্রণ করতে এবং সীমান্তরেখা ও আন্তর্জাতিক সীমান্তরেখায় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে। যে দেশ নিজেই মানবাধিকার লঙ্ঘন করে, সে দেশ এত মিথ্যাচারণ করে কী করে, প্রশ্ন তুলেছে নয়াদিল্লি। এক সরকারি মুখপাত্র জানিয়েছেন, ভারতের তরফে বারবার পাকিস্তানকে সংযত হওয়ার বার্তা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু কথা কানে তুলছে না ইসলামাবাদ। তবে ভারত এখনও সংযত আছে।

এদিন এই প্রসঙ্গেও আলোচনা চলে৷ পাকিস্তানের একাধিক অনুপ্রবেশ ও যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের কথাও উল্লেখ করা হয় বিদেশমন্ত্রকের তরফে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের আলোচনায় ওঠে কাশ্মীরের নিরাপত্তার প্রসঙ্গ৷