কলকাতা: সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহেই পশ্চিমবঙ্গে আসছেন বিজেপির কার্যকরী সভাপতি জগৎ প্রকাশ নাড্ডা। পাশাপাশি শহরে দুর্গা পূজা উদ্বোধন করতে আসছেন বিজেপি প্রেসিডেণ্ট ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

সেপ্টেম্বরের শেষে রাজ্যে আসছেন বিজেপির কার্যনির্বাহী সভাপতি জগৎপ্রকাশ নাড্ডা। তবে তিনি একা নন, রাজ্যে দুর্গাপুজো উদ্বোধন করতে আসবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। বুধবার রাতে রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেছেন অমিত শাহ। সেখানেই এই দুই নেতার রাজ্যে আসার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে।

বিজেপি সূত্রে খবর, নাড্ডা ২৭ এবং ২৮ সেপ্টেম্বর রাজ্যে আসবেন। জম্মু ও কাশ্মীরে আর্টিকেল 370 ধরা নিস্ক্রিয়করণ-বিষয়ে সেমিনার করবেন নাড্ডা।

অন্যদিকে, পুজোতে রাজ্যে আসবেন অমিত শাহ। পুজো কমিটি গুলি এবার অমিত শাহকে মুখ্য অতিথি হিসাবে দেখতে চাইছে। রাজ্যের নেতারা তা তাঁকে জানিয়েছেন। সূত্রের খবর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, তিনি আসবেন। রাজ্য পার্টির আমন্ত্রন গ্রহণ করছেন। তবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ এসে জেনে পরিকল্পনার পরিবর্তন হতে পারে।

কলকাতায বিজেপির কার্যকরি সভাপতি জগৎপ্রসাদ নাড্ডার আসার কথা ছিল অগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহেই। কিন্তু তা হয়ে ওঠেনি।

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে একবারও পশ্চিমবঙ্গে পা রাখেননি। কিন্তু, এর মাঝেই বিজেপিতে পালাবদল হয়েছে৷ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বপ্রাপ্ত শাহ বেছে নিয়েছেন কার্যকরি সভাপতি জগৎপ্রসাদ নাড্ডাকে৷

মন্ত্রকের ব্যস্ততার কারণে তাঁর কাজের কিছুটা ভার দেওয়া হয়েছে মোদী সরকারের প্রাক্তন এই স্বাস্থমন্ত্রীকে৷ দলের অন্দরে অনেকেই তাঁকে ‘জেপি’ বলে ডাকেন৷ ইদানিং অনেকেই বলছেন, তিনি নাকি অমিত শাহের ‘ডেপুটি৷’ এরমধ্যেই যা খবর, ডিসেম্বরেই বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি হতে চলেছেন জগৎপ্রকাশ নাড্ডা। সেক্ষেত্রে তিনি আগেই রাজ্যে এসে পরিস্থিতি বুঝে নিতে পারবেন।

তুখড় সংগঠন ‘জেপি’ বিজেপির কার্যকরি সভাপতি হিসাবে এই প্রথম কলকাতায় আসছেন৷ শোনা যাচ্ছে, তিনি বেশ কয়েকটি সাংগঠনিক সভা করবেন৷ সেগুলি অন্তর্দলীয় সভা৷ বন্ধ দরজার ভিতরে কী হবে তা দলের সাধারণ কর্মীরা জানতে পারবেন না৷

তবে সাধারণ কর্মীদের জন্য শহরের কোনও বড় প্রেক্ষাগৃহে 370 বিষয়ে সেমিনার আয়োজন করা হতে পারে৷ যা খবর, বিস্তারক কর্মসূচি শেষ হয়ে যাওয়ার পর রাজ্যে পার্টির কী অবস্থা তা খতিয়ে দেখবেন তিনি৷ দেখবেন সদস্যতা অভিযানের ফল কতটা পাওয়া গিয়েছে৷