নয়াদিল্লি: পশ্চিমবঙ্গে তিনটি বিধানসভা উপনির্বাচনে বিজেপি কটা আসন পাচ্ছে? মঙ্গলবার সংসদে দেখা হতেই মুকুল রায়কে এই প্রশ্ন করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ মুকুল রায় তাঁকে জানিয়েছেন, তিনটি আসনই পাচ্ছে বিজেপি৷

সোমবার করিমপুর, খড়্গপুর সদর ও কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার উপনির্বাচন হয়েছে। তার পরই রাজ্য বিজেপি নেতা মুকুল রায় চলে গিয়েছেন দিল্লিতে। মঙ্গলবার দেখা মাত্রই মুকুল রায়কে অমিত শাহ প্রশ্ন করেন, “কটা আসনে জিতবেন। আঙুল দেখিয়ে মুকুল রায় আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই বলেন, তিনটি আসনেই জিতব”।

মুকুলের জবাব শুনে খানিকটা বিস্মিত হয়ে যান অমিত শাহ৷ ফের মুকুলকে জিজ্ঞাসা করেন, তিনটি আসনেই জিতবেন? শুনে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে হিসাব দিতে শুরু করেন মুকুল। তিনি বলেন, আপনাকে আগেই সুরে বলেছিলাম তিনটি আসনে জেতার মতোই পরিস্থিতি রয়েছে। একটু পরিশ্রম করার দরকার ছিল শুধু। কাল ভোটের পর হিসাব করে দেখেছি তিনটিতেই বিজেপি জিতছে।

সোমবার তিন বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন ঘিরে দিনব্যাপী উত্তপ্ত ছিল কালিয়াগঞ্জ, করিমপুর এবং খড়গপুর। বেলা বাড়তেই একের পর এক ঘটনায় উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি। করিমপুরে রীতিমত জঙ্গলে ফেলে মারধর করা হয় বিজেপি প্রার্থী জয়প্রকাশ মজুমদারকে। এই ঘটনার পরই ভারতের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ও প্রধান নির্বাচন অফিসারকে চিঠি দেন বিজেপি নেতা মুকুল রায় এবং বিজেপির রাজ্য নির্বাহী কমিটির সদস্য শিশির বাজোরিয়া।

রাজনীতির প্রেক্ষিতে এই উপনির্বাচন বেশ গুরুত্বপূর্ণ। লোকসভা ভোটে এই তিন কেন্দ্রেই ভাল ফল করেছে বিজেপি। সেই ধারা কী বজায় রাখতে পারবে বাংলার রাজনীতিতে দ্বিতীয় শক্তি হয়ে উঠে আসা গেরুয়া শিবির? রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের কথায়, খড়্গপুরে সদ্য প্রাক্তন বিধায়ক তথা দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে এলাকায় একাংশ মানুষের অসন্তোষ রয়েছে। আর করিমপুর আসন যেহেতু সংখ্যালঘু অধ্যুষিত আসন এবং সেখানে লোকসভা ভোটে তৃণমূলের থেকে ১৪ হাজার ভোটে পিছিয়ে ছিল বিজেপি- তাই দুটি জায়গাতে বিজেপির জয় সহজ নয়।

তবে সোমবার ভোট গ্রহণ পর্ব মিটে যাওয়ার পর মুকুলবাবু ঘরোয়া আলোচনা দলের নেতাদের বলেন, কালিয়াগগঞ্জে পঞ্চাশ হাজার ব্যবধানে জেতা উচিত বিজেপির। করিমপুরে দলের প্রার্থী জয়প্রকাশ মজুমদারকে তৃণমূল যতই হেনস্তা করুক সেখানে দশ-বারো হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়ের সম্ভবনা রয়েছে বিজেপির। তবে খড়্গপুরে লোকসভা ভোটের তুলনায় জয়ের ব্যবধান কমে যাবে। তবে বিজেপি-ই জিতছে৷