মুম্বই- লাদাখের উপত্যকায় সীমান্ত নিয়ে ভারত এবং চিনের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। ক্রমশ এই সীমান্ত ঘিরে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। আর তাই এবার এক বড় সিদ্ধান্ত নিলেন অভিনেতা আমির খান। আমিরের আসন্ন ছবি ‘লাল সিং চাড্ডা’র বেশ কিছু অংশের শুটিং লাদাখে হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু ভারত ও চিনের মধ্যে সম্পর্ক অবনতি হওয়ায় সেই শুটিং আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আমির খান। এও জানা যাচ্ছে যে লাদাখে যে শুটিং হওয়ার কথা ছিল সেগুলি হতে পারে কার্গিলে। করোনা আবহের জন্য এমনিতেই শুটিংয়ের বেশ কিছু সময় চলে গিয়েছে। প্রযোজক আমির এবং তার স্ত্রী কিরণ রাও এর ক্ষতি হয়েছে অনেকটা।

আর তারপরই ভারতের সঙ্গে চিনের সীমান্ত ঘিরে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে তাতে এখন লাদাখে শুটিং করা ঠিক নয় বলে মনে করছেন আমির। কিন্তু শুটিংয়ের সময় আর পিছনো ঠিক নয়। তাতে আরো ক্ষতি হবে। আর সেই জন্যই লাদাখের বদলে কার্গিলের শুটিং করার কথা ভাবছে ‘লাল সিং চাড্ডা’ টিম।

আমিরের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র জানাচ্ছেন, লাদাখের অবস্থা এখন খুবই সংকটজনক। এর মধ্যে সেখানে শুটিং করা বেশ সমস্যার। তবে লাদাখের বদলে যে কার্গিলকেই বেছে নেওয়া হবে এমন কোনও সিদ্ধান্তে এখনো উপনীত হওয়া যায়নি। তবে শুধু ভারত চিন সম্পর্ক নয়। যেহেতু করোনা আবহ পুরোপুরি ঠিক হয়নি তাই শুটিং কবে থেকে শুরু করা যাবে তা নিয়ে এখনও ধন্দে রয়েছে আমির ও তাঁর টিম।

প্রসঙ্গত টম হ্যাঙ্কসের বিখ্যাত ছবি ফরেস্ট গাম্প থেকে অনুপ্রাণিত ‘লাল সিং চাড্ডা’। এ বছরই এই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেই আশা পূর্ণ হবে কিনা তা এখনো বোঝা যাচ্ছে না।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুন টিক টক সহ ৫৯ টি চাইনিজ অ্যাপস বন্ধ করে দিয়েছে ভারত সরকার। লাদাখের গান উপত্যকায় চিনা হামলার পর থেকেই চিনা দ্রব্য নিষিদ্ধ করার পক্ষে সওয়াল করেছিল দেশের মানুষ। আর তারপরই এই বড় সিদ্ধান্ত নেয় ভারত সরকার। টিকটক ছাড়াও যে প্রচলিত বন্ধ হয় সেগুলি হল শেয়ার ইট, হ্যালো, ক্যাম স্ক্যানার, ইউসি ব্রাউজার, জেন্ডার, বিউটি প্লাস, উইচ্যাট, শিইন, ক্লিন মাস্টার প্রভৃতি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ