ওয়াশিংটন:  আকাশসীমা লঙ্ঘন করে ভারতের মিলিটারি ঘাঁটিতে আঘাত করার চেষ্টা করেছিল পাকিস্তান এয়ারফোর্সের এফ-১৬। এমনকি আমেরিকার অনুমতি ছাড়াই পাকিস্তান এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ব্যবহার করেছে বলে দাবি তুলেছে ভারত। শুধু দাবি তোলাই নয়, পাকিস্তান যে সেদিন এফ-১৬ ব্যবহার করেছে তার সপক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ আমেরিকার হাতে তুলে দিয়েছে ভারত। আর এরপরেই আমেরিকার কাছে বিষয়টির উপর হস্তক্ষেপ চেয়েছে নয়াদিল্লি। যদিও পাকিস্তান এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ব্যবহারের কথা অস্বীকার করলেও ভারতের দাবি মেনে ইতিমধ্যেই বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মার্কিন বিদেশ দফতরের এক আধিকারিক।

গত বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান থেকে ছোঁড়া ‘আমরাম’ মিসাইলের অংশবিশেষ দেখান ভারতের সেনা আধিকারিকরা। এফ-১৬ ভেঙে পড়ার সমস্ত জানা গিয়েছে, ভারতের সেনাছাউনি লক্ষ্য করে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি আমরাম মিসাইল ছোঁড়ে পাক এফ-১৬ যুদ্ধবিমান। এরপরেই ওই এলাকাজুড়ে তল্লাশি চালিয়ে মিসাইলের অংশবিশেষ উদ্ধার করেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। সেই সংক্রান্ত প্রমাণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হাতেও তুলে দেওয়া হয়।

এই প্রসঙ্গে মার্কিন বিদেশ দফতরের তরফে জানানো হয়, পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে আমেরিকার থেকে কেনা এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের অপব্যবহার করেছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মার্কিন বিদেশ দফতরের সহকারী মুখপাত্র রবার্ট পাল্লাডিনো বলেন, ‘আমরা রিপোর্টগুলি দেখেছি। গোটা বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এখনই এই বিষয়ে চূড়ান্তভাবে কিছু বলা সম্ভব নয়। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের প্রযুক্তি জড়িয়ে রয়েছে, এমন দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়ে আমরা নীতিগতভাবেই প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করব না। তবে গোটা বিষয়টির উপর নজর রাখা হচ্ছে।’

অন্যদিকে ইতিমধ্যে পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আধিকারিক জন বোল্টনকে জানিয়েছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে আমেরিকা দেখছে অজিত দোভালকে আশ্বাস মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার।