ওয়াশিংটনঃ  মার্কিন বিমান বাহিনী পরমাণু অস্ত্রবাহী মিনিটম্যান-৩ আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। একেবারে গোপনে এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে খবর। পরীক্ষার আগে মার্কিন সরকারের তরফে কোনও বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। হঠাত কেন এত গোপনীয়তা মার্কিন সরকারের তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

ক্যালিফোর্নিয়ার ভ্যান্ডেনবার্গ বিমানঘাঁটি থেকে এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়। ক্ষেপণাস্ত্রটি ১৩ হাজার কিলোমিটারের বেশি পথ পাড়ি দিতে পারে। মার্কিন বিমান বাহিনীর গ্লোবাল স্ট্রাইক কমান্ড এক বিবৃতিতে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা সফল হওয়ার কথা জানিয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যেসব লক্ষ্য নিয়ে ক্ষেপণাস্ত্রটি পরীক্ষা করা হয়েছে তার সবই অর্জিত হয়েছে। এবং সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করেছে। তবে এই সম্পর্কে কোনও বিশ্লেষণমূলক তথ্য প্রকাশ করা হয় নি। এছাড়া, কোথায় লক্ষ্যবস্তু ছিল তাও জানানো হয় নি। মনে করা হচ্ছে মার্শাল দ্বীপপুঞ্জের একটি এলাকা থেকে ক্ষেপণাস্ত্রটি পরীক্ষা করা হয়েছে।

মার্কিন বিমান বাহিনীর একজন শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, তিন থেকে পাঁচ বছর আগে এই পরীক্ষা করার কথা ছিল। এবং চলতি বছর এই প্রথম এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করল আমেরিকা।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যখন বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন বলে খবর, তার আগে আমেরিকা এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করল। আমেরিকা সবসময় উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি ও পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার বিষয়ে আপত্তি জানিয়ে আসছে। কিন্তু নিজে সে পরীক্ষা অব্যাহত রেখেছে।