ওয়াশিংটন: বিশ্বজুড়ে করোনা অতি মহামারীর আকার ধারণ করায় রীতিমত অস্বস্তিতে রয়েছে আমেরিকা। কারণ করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশ। এত মৃত্যুর পাশাপাশি ধাক্কা খেয়েছে মার্কিন অর্থনীতি।

লাফ দিয়ে বাড়ছে বেকারত্ব। এর ফলে ট্রাম্প প্রশাসন এইচ ওয়ান বি ভিসা সহ বিদেশি কর্ম প্রার্থীদের জন্য সব রকমের ভিসা অনুমোদন বন্ধ করে দিতে পারে বলে আমেরিকার সংবাদমাধ্যমে খবর।

এমন খবরে স্বাভাবিকভাবেই আমেরিকায় কর্মরত ভারতীয় তথা অন্যান্য দেশের সেইসব মানুষজনের দুশ্চিন্তা বাড়াটাই স্বাভাবিক। যদিও ওই খবরটিতে এইসব নাগরিকদের অসুবিধা হবে না বলে ইঙ্গিত দিয়েছে।

‌তবে হোয়াইট হাউস এখনও এই বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি। যদিও আবার একথা অস্বীকারও করেনি। বিশেষত ট্রাম্পের আমেরিকা ফাস্ট নীতি এদের দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছে। নভেম্বরে ভোটকে মাথায় রেখে দেশের মানুষের কাছে জনপ্রিয় হতে ট্রাম্প তেমন কিছু করতে পারে বলে আশঙ্কা দানা বাঁধছে।

আমেরিকার অর্থ বর্ষ শুরু হয় ১ অক্টোবর থেকে। এদিকে ওই খবরটিতে জানানো হয়েছে পরের অর্থ বর্ষের পুরোটাই ট্রাম্প প্রশাসন এই বিষয়ে স্থগিতাদেশ জারি করতে পারে। সে ক্ষেত্রে এইচ ওয়ান বি পাশাপাশি, এইচ টুবি, জে ওয়ান,এল ওয়ান প্রভৃতি ভিসাতে কোপ পড়তে পারে।

তখন সেখানে কর্মরত বহু ভারতীয়কে চাকরি খুইয়ে দেশে ফিরতে হতে পারে। ভিসা দেয়া বন্ধ করলে অথবা ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে পরিস্থিতি জটিল হবে বিশেষত তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রের কর্মীদের।

এমনিতেই করোনার পাশাপাশি আবার শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে নৃশংসভাবে কৃষ্ণাঙ্গ ফ্লয়েডের নিহত হওয়ার ঘটনা জনসমক্ষে আশায় অশান্তি ছড়িয়েছে গোটা দেশে। যা রীতিমতো চাপে ফেলেছে ট্রাম্পকে।

এই অবস্থায় আমেরিকানদের কাছে জনপ্রিয় হতে ভোটের আগে তেমন কিছু খেলা ট্রাম্প ‌ খেলতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। ‌ যদিও আবার আগামী নির্বাচনে জিততে ডোনাল্ড ট্রাম্প নানারকম কারচুপির ‌ আশ্রয় নিতে পারে বলে অভিযোগ তুলেছেন তার বিরুদ্ধে ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ