স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: সময় মতো অ্যাম্বুলেন্স না আসায় প্রাণ হারালো এক সদ্যজাত শিশু৷ ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহারের ১ নং ব্লকের মোয়ামারি এলাকায়৷ ঘটনায় অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে ওই শিশুর পরিবার৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৭ অক্টোবর কোচবিহার এম জে এন হাসপাতালে যমজ সন্তানের জন্ম দেন ওই এলাকার বাসিন্দা আজিমা বিবি৷ এরপর তিনি সন্তানদের নিয়ে বাড়িও চলে যান৷ এরপর এক সন্তান অসুস্থ হয়ে পড়ে৷ আজিমা বিবির অভিযোগ, সেই সময় বার বার ১০২ নম্বরে ফোন করা হয়৷ কিন্তু কোনও অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা তাঁরা পাননি৷ উপরন্তু ১০২ নম্বরে ফোন করা হলে সেখান থেকে তাঁকে জানায় তারা শুধু গর্ভবতী মায়েদের হাসপাতালে নিয়ে যান৷ শিশুদের নিয়ে যান না৷ কিন্তু তার দাবি, সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা গর্ভবতী এবং প্রসূতি মায়েদের পাশাপাশি এক বছর বয়স পর্যন্ত শিশুরাও পাবে। কিন্তু তারা সেই পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হয়েছে৷

শেষ পর্যন্ত অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা না পেয়ে বাধ্য হয়ে টোটো করে কোচবিহার এম জে এন হাসপাতালের দিকে রওনা হন আজিমা বিবি ও তার স্বামী রফিকুল ইসলাম। পথে সুকটাবাড়িতে ভীষণভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে ওই শিশুটি৷ কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি শিশুটির৷ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা শিশুটিকে মৃত বলে ঘোষণা করে৷ এই ঘটনার পর শিশুটির পরিবার কোচবিহার এমজেএন হাসপাতাল সুপার জয়দেব বর্মণের সঙ্গে দেখা করে তাকে লিখিতভাবে অভিযোগ জানান।

হাসপাতাল সুপার জানিয়েছেন, বিষয়টি অমানবিক৷ এই বিষয়ে অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার সঙ্গে কথা বলা হবে৷ দরকার পরলে তাদের শোকজের পাশাপাশি স্বাস্থ্য দফতরকেও বিষয়টি জানানো হবে।