মুম্বই: সোমবারই ইংল্যান্ড-ওয়েলসের মাটিতে আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচক কমিটি। প্রত্যাশা পূরণ করে স্কোয়াডে যেমন জায়গা পেয়েছেন ক্রিকেটাররা, তেমনি প্রত্যাশা জাগিয়েও বিশ্বকাপগামী দলে ঠাঁই হয়নি বেশ কিছু ক্রিকেটারের।

সেই তালিকায় প্রতিভাবান উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্তের দলে সুযোগ না পাওয়ায় হতাশ প্রাক্তন ক্রিকেটারদের অনেকেই। তবে ‘বেবিসিটার’ পন্তের দলে সুযোগ না হওয়ারও কারণও দর্শিয়েছে নির্বাচকমন্ডলী। প্রত্যাশা জাগিয়ে বিশ্বকাপে সুযোগ না পেলেও এখনও পন্তের কোনও মন্তব্য সেভাবে সামনে আসেনি। কিন্তু তালিকায় দ্বিতীয় নাম অম্বাতি রায়ডু কিন্তু বিশ্বকাপগামী দলে সুযোগ না পেয়ে নিজেকে সামলে রাখতে পারলেন না।

২৪ ঘন্টা পেরোতে না পেরোতেই বিশ্বকাপের দল নির্বাচন নিয়ে কটাক্ষ ছুঁড়ে দিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। মঙ্গলবার নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে বিশ্বকাপ দেখার পরিকল্পনা রায়ডু শেয়ার করেন অনুরাগীদের সঙ্গে। সেখানে তিনি লেখেন, ‘বিশ্বকাপ দেখার জন্য নতুন 3D গ্লাসের সেট অর্ডার করলাম।’ স্বল্প সময়ের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায় দল নির্বাচন নিয়ে মুম্বইকর ব্যাটসম্যানের এই টুইট।

সোমবার রায়ডুর পরিবর্ত হিসেবে বিজয় শংকরের দলে সুযোগ পাওয়া নিয়ে নির্বাচক প্রধান জানান, ‘বিজয় থ্রিডি ডায়মেনসন হিসেবে দলে অপরিহার্য হয়ে উঠেছে।’ তারই পরিপ্রেক্ষিতে কটাক্ষের সুরে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান যে এই উক্তি করেছেন, তা আর বুঝতে বাকি থাকে না কারও। তাই বিশ্বকাপ চলাকালীন বেশ কিছু ক্রিকেটারের পারফরম্যান্স যে রায়ডুর নজরে থাকবে, তা একপ্রকার নিশ্চিত। আর ঠিক সে কারণেই কটাক্ষের সুরে ডান-হাতি ব্যাটসম্যান বিশ্বকাপের দলে সুযোগ না পাওয়ার হতাশা উগড়ে দিয়েছেন বলে মনে করছে নেটিজেনরা।

উল্লেখ্য, ২০১৮ এশিয়া কাপ টুর্নামেন্ট থেকে রায়ডুকে চার নম্বরে দেখে নেওয়ার কাজ শুরু করে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। বিশ্বকাপে তাঁকে চার নম্বরে খেলানোর প্রশ্নে শুরুটা নির্বাচকদের আশ্বস্তও করেন এই ব্যাটসম্যান। এশিয়া কাপ পরবর্তী ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে ১টি শতরান আসে তাঁর ব্যাট থেকে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ওয়ান ডে সিরিজে ২টি ম্যাচ খেলেন রায়ডু। সেখানে চূড়ান্ত ব্যর্থ হন তিনি। এরপর কিউয়িদের ডেরায় ৫ ম্যাচে মাত্র ১টি অর্ধশতরান আসে তাঁর ব্যাট থেকে।

সবশেষে বিশ্বকাপের আগে ঘরের মাঠে অজিদের বিরুদ্ধে চুড়ান্ত মহড়া সিরিজে ডাহা ফেল করেন তিনি। ৩টি ইনিংসে মাত্র ৩৩ রান আসে তাঁর ব্যাট থেকে। এরপরই ব্যাটিংয়ে ধারাবাহিকতার অভাব তাঁকে বিশ্বকাপের দলে সুযোগ পাওয়া থেকে বেশ কিছুটা ব্যাকফুটে ঠেলে দেয়। চার নম্বর নিয়ে দীর্ঘ টালবাহানা চললেও তাঁর উপর ভরসা রাখতে ব্যর্থ হন নির্বাচকরা।

টপ অর্ডারে রোহিত-ধাওয়ান এবং কোহলির সঙ্গে ১৫ সদস্যের দলে নির্বাচকরা ব্যাটসম্যান হিসেবে ভরসা রেখেছেন কেদার যাদব, কে এল রাহুলের উপর। ধোনির সঙ্গে বিকল্প উইকেটরক্ষক হিসেবে ইংল্যান্ড যাচ্ছেন দীনেশ কার্তিক। সবমিলিয়ে বিশ্বকাপগামী দলে নির্বাচকরা তাঁকে না রাখায় যে বেশ হতাশ রায়ডু, মঙ্গলবারের টুইট তাঁর প্রমাণ।