ওয়াশিংটনঃ  মহিলাদের ‘সেক্স স্ট্রাইক’ করার ডাক দিলেন মার্কিন অভিনেত্রী অ্যালিসা মিলানো। জর্জিয়ায় নতুন গর্ভপাত আইনের বিরুদ্ধে এই স্ট্রাইকের ডাক দিয়েছেন তিনি। মহিলারা তাদের নিজের দেহের ওপর আইনি নিয়ন্ত্রণ না পাওয়া পর্যন্ত তারা গর্ভবতী হওয়ার ঝুঁকি নিতে পারে না। সোশ্যাল মিডিয়াতে এমনই টুইট করেছেন মিলানো। জর্জিয়াতেই বর্তমানে গর্ভপাতের ওপর কড়াকড়ি করে আইন চালু হচ্ছে।

আর এই প্রতিবাদে এমন ‘স্ট্রাইকে’র ডাক অভিনেত্রীর। যদিও এর প্রতিবাদে অ্যালিসা যে অবস্থান নিয়েছেন তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়েছে। টুইটারে চালু হয়েছে ‘হ্যাশট্যাগসেক্সস্টাইক’।

জর্জিয়ার গভর্নর গত মঙ্গলবার গর্ভপাতবিরোধী ‘হার্টবিট’ আইন স্বাক্ষর করেছেন। আর তা কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে আগামী বছর অর্থাৎ ১ জানুয়ারি থেকে। আইনটিতে বলা হয়েছে, মানব ভ্রুণের হৃদযন্ত্রের আওয়াজ (হার্টবিট) পাওয়া যাওয়া মাত্রই সেটিকে আর গর্ভপাত করে মেরে ফেলা যাবে না। সাধারণত গর্ভধারণের প্রায় ৬ সপ্তাহের মাথায় ভ্রুণের হার্টবিট অনুভব করা যায়। সেই সময়ের মধ্যে বহু মহিলাই বুঝতে পারে না তারা গর্ভবতী কিনা। গর্ভকালীন অসুস্থতা সাধারণত শুরু হয় ৯ সপ্তাহ থেকে।

যদিও একদিকে এমন বিতর্ক-সোশ্যাল মিডিয়াতে তৈরি হয়েছে, অন্যদিকে সরকারের আইনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলাও হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। মিলানো টুইটে সেক্স স্ট্রাইকের আহ্বান জানিয়েছেন শনিবার। আর তারপরই ‘#সেক্সস্ট্রাইক’ আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছে। ৩৫ হাজারের বেশি মানুষ মালিনোর টুইটে লাইক দিয়েছে। তার টুইটটি রিটুইট হয়েছে ১২ হাজারের বেশিবার। মালিনোর এক সহ-অভিনেত্রীও তার সমর্থনে টুইট করেছেন।