কলকাতা : রাজ্যে গত কয়েক দিনের ঊর্ধ্বমুখী করোনার (Corona) সুস্থতার হার আশার আলো দেখাচ্ছে। তবে মারণ ভাইরাস করোনা রাজ্যের মানুষের প্রাণ কেড়েই চলেছে । সোমবারের স্বাস্থ্যদপ্তরের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, রবিবারের মতো সোমবারও রাজ্যে করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ১৪৭ জনের। তবে ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা সামান্য কম হয়েছে । যদিও রবিবারের তুলনায় বেশ খানিকটা কম করোনার স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে রাজ্যে।

সোমবার রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের (State Health Department) দেওয়া বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ০০৩ জন। এর মধ্যে কলকাতায় (Kolkata) একদিকে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৮৯৯ জন। সংক্রমণের নিরিখে এদিন আবারও করোনা সংক্রমণে কলকাতাকে ছাপিয়ে গেল উত্তর ২৪ পরগনা। গত ২৪ ঘণ্টায় উত্তর ২৪ পরগনায় ৪ হাজার ২২০ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ হয়েছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় একদিনে সংক্রমিতের সংখ্যা ১ হাজার ২৬৯ জন । হাওড়া ও হুগলিতে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন যথাক্রমে ১ হাজার ২৭১ জন ও ১ হাজার ০৮৬ জন। তবে উল্লেখযোগ্যভাবে দৈনিক সংক্রমণ গত ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে নদিয়া জেলায়। একদিনে এই জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ০৪৭ জন। রাজ্যের অন্যতম আকর্ষণীয় শৈল শহর দার্জিলিংয়েও হ্রাস পাচ্ছে না করোনা সংক্রমণের হার । গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৭২৮ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। ফলে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ লক্ষ ৫২ হাজার ৪৩৩ জন। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ১৩ হাজার ৪৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনা সংক্রমণে।

তবে দেশের অন্যান্য রাজ্যের মতো পশ্চিমবঙ্গেও (West Bengal) বেশ কয়েকদিন ধরেই বাড়ছিল করোনা অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা। কিন্তু কড়া বাধানিষেধ জারি হওয়ার পর ধীরে ধীরে রাজ্যের করোনা কমছে সংক্রমণ। বর্তমানে রাজ্যে করোনায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১ লক্ষ ৩১ হাজার ৫৬০ জন । তবে করোনা ভাইরাসের (Corona Virus) সঙ্গে লড়াইয়ে আশার আলো দেখাচ্ছেন করোনা জয়ীরাই। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৯ হাজার ১০১ জন। এ নিয়ে মোট ১০ লক্ষ ৭ হাজার ৪৪২ জন করোনা জয় করেছেন । বর্তমানে রাজ্যে সুস্থতার হার ৮৭.৪২%। রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের সোমবারের বুলেটিন থেকে জানা যাচ্ছে , গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৬০ হাজার ১৬ জনের।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.