স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অন্যতম নিদর্শন কোচবিহারের মদন মোহনের রাস উৎসব৷ রাজ আমল থেকেই এই সম্প্রীতি বর্তমান। এই রাস উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ রাস চক্র৷ রাস উৎসবের সময় মদন মোহন মন্দিরে এই রাস চক্র তৈরি করা হয়। আর এই চক্র ঘুড়িয়েই পুণ্যলাভ হয় এমনটাই বিশ্বাস মানুষের। সম্প্রীতির নজির তৈরি করে গত তিন পুরুষ ধরে এই রাস চক্র তৈরি করে আসছেন আলতাফ মিয়াঁ।

৩৪ বছরের বেশি সময় থেকে রাস চক্র তৈরি করছেন তিনি৷ তার আগে তাঁর ঠাকুরদা ও বাবা এই কাজ করতেন৷ রাজ আমল থেকেই এই সম্প্রীতির সূচনা যা আজও অমলিন। লক্ষ্মী পূর্ণিমা থেকে রাস পূর্ণিমা এই এক মাস ধরে কোচবিহারের হরিণ চওড়ায় নিজের বাড়িতেই এই রাস চক্র তৈরি করেন আলতাফ মিয়া। একমাস নিরামিষ খান পরিবারের সকলেই। এই রাস চক্রেও রয়েছে হিন্দু মুসলমান বৌদ্ধ ধর্মের ছোঁয়া। মহরমের তাজিয়ার ধরনে এই রাস চক্র৷ তার মধ্যে থাকে হিন্দু দেবদেবীর ছবি। বছরের পর বছর ধরে এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির মেলা বন্ধনে উজ্জ্বল কোচবিহারের রাস উৎসব।

আরও পড়ুন : নিজের তৈরি তাজমহলে স্ত্রীয়ের পাশেই শায়িত থাকবেন এ যুগের ‘শাহজাহান’

আলতাফ মিয়াঁ বলেন, ‘আমার ঠাকুরদাদা এই কাজ শুরু করেন৷ তারপর আমার বাবা করতেন এই কাজ৷ গত ৩৪ বছর ধরে আমি এই কাজ করছি৷ আমার ছেলেও কাজ শিখেছে। পরিবারের সকলেই এই কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পরেছেন৷ কেউ আমাকে বলেননি কিন্তু আমি নিজের ইচ্ছাতেই লক্ষ্মীপূর্ণিমা থেকে রাস পূর্ণিমা পর্যন্ত নিরামিষ খেয়েই এই কাজ করি।’

আলতাফ মিয়ার সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করেন তাঁর স্ত্রী বাবলি বিবিও৷ তিনি বলেন, ‘এত বড় একটা উৎসবের কাজ হচ্ছে আমাদের বাড়িতে৷ তাই আমরা সবাই এই কাজে হাত লাগাই।’