মহিষাদল: এটিএম জালিয়াতির মত ঘটনা যেমন চিন্তা বাড়ায়৷ তেমনই প্রয়োজনে পড়লেই ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলতে পারবেন কি না সেই আশঙ্কাও কাজ করে বহু মানুষের মনে৷ সেক্ষেত্রে ডাকঘরকে অনেক বেশি নিজের মনে করেন গ্রামবাংলার মানুষ৷ এখনও প্রত্যন্ত এলাকায় ডাকঘরেই ভরসা রাখেন বহু মানুষ৷ কিন্তু সেই ডাকঘরে গিয়ে যদি দিনের পর দিন গ্রাহককে ফিরে আসতে হয় তা সত্যিই বড় সমস্যার৷ যেমনটা ভুগতে হচ্ছে মহিষাদল উপ-ডাকঘরের গ্রাহকদের৷

আরও পড়ুন: এই খাবার কুকুরও খাবে না, বিমানের পরিষেবা নিয়ে ক্ষোভ রাষ্ট্রপতির

গত কয়েক সপ্তাহে মহিষাদল ডাকঘরের পরিষেবা বন্ধ হয়ে পড়ায় সমস্যায় পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। গ্রাহকরা তাঁদের পরিষেবা না পাওয়ায় বাড়ছে ক্ষোভ৷ দিনের পর দিন ডাকঘরে এসে পরিষেবা না পেয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে গ্রাহকদের। মহিষাদল উপ ডাকঘরের এই ধরনের সমস্যায় জেরবার হয়ে পড়েছেন বহু মানুষ।

অশোক সাহু নামে এক ৭০ বছরের ব্যক্তি জানান, ‘‘আমার একটি গুরুত্বপূর্ণ চিঠি এসেছে ডাকযোগে৷ গত ৬ তারিখ থেকে ডাকঘরে আসছি। প্রতিদিন যন্ত্রের সমস্যার কথা জানিয়ে পরিষেবা না দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ চিঠি৷ হাতে পাচ্ছি না৷ বলুন তো কী সমস্যা৷’’ তাঁর অভিযোগ, আধিকারিকদের জানানো হলে তাঁরা বলছেন যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে এই সমস্যা৷ কিন্তু এভাবে সবসময় হাত উল্টে দিলে তো মুশকিল বলেন অশোকবাবু৷

আরও পড়ুন: হিন্দুদের বলি প্রথা নিষিদ্ধ হচ্ছে রাবণের লঙ্কায়

এই উপ-ডাকঘরের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক (পোস্ট মাস্টার) শ্রীকৃষ্ণ ভৌমিক জানান, ‘‘সমস্ত ডাকঘরেই এই অসুবিধা হচ্ছে৷ বেশ কিছু মেশিন কাজ করছে না। বিষয়টি উপরমহলেও জানিয়েছি। আশাকরছি দু’-একদিনের মধ্যে পরিষেবা স্বাভাবিক হয়ে যাবে৷’’