মেলবোর্ন: আয়োজক ইংল্যান্ডের সঙ্গে ভারতকে আসন্ন বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট হিসাবে বিবেচনা করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকেও লড়াই থেকে চিটকে দেওয়া যাচ্ছে না বটে, তবে অজি প্রাক্তনরা বিশ্বকাপের কালো ঘোড়া হিসাবে বাজি ধরছেন বিগ-থ্রি’র বাইরের দু’টি দলকে৷

অ্যালান বর্ডারের মতো কিংবদন্তি বিশ্বকাপের তাঁর কালো ঘোড়া হিসাবে বেছে নিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে৷ তাঁর সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস৷ মার্ক ওয়া ও ব্রেট লি’র মতো অজি প্রাক্তনরা আবার বাজি ধরছেন গতবারের রানার্স নিউজিল্যান্ডের হয়ে৷ লি আবার এও জানাচ্ছেন যে, বড় দলগুলিকে চমকে দিতে পারে আফগানিস্তানও৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের জন্য বিরাটকে শুভেচ্ছা ব্রাজিল তারকার

বর্ডার বলেন, ‘আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটার দিতে তাকিয়ে রয়েছি৷ ওরা অত্যন্ত ভয়ঙ্কর দল৷ শুরুতে মোমেন্টাম পেয়ে গেলে টুর্নামেন্ট ভয়ানক রূপ নিয়ে পারে ক্যারিবিয়ানরা৷ ম্যাচের দৈর্ঘ যত ছোট হয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজে তত আগ্রাসী রূপ নেয়৷ ইংল্যান্ডের পরিবেশে ৫০ ওভারের ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে মানানসই৷ এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটার দিকে নজর থাকবে৷’

সাইমন্ডসের কথায়, ‘সাম্প্রতিক কালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পারফরম্যান্স মন্দ নয়৷ তাছাড়া ওদের দলে ক্রিস গেইলের মতো ক্রিকেটার রয়েছে৷ ওরা যেরকম ক্রিকেট খেলে, ইংল্যান্ডের মাঠগুলি তাঁর জন্য আদর্শ৷ সুতরাং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে কালো ঘোড়া বলা যায়৷’

আরও পড়ুন: জোড়া ওয়ার্ম-আপ জিতে বিশ্বকাপ শুরু করবে অস্ট্রেলিয়া

মার্ক ওয়া বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডই আমার কালো ঘোড়া৷ ওরা গতবারের রানার্স৷ কেন উইলিয়ামসন, মার্টিন গাপ্তিল, ট্রেন্ট বোল্টের মতো ক্রিকেটাররা বিশ্বকাপে নিজেদের আলাদা ছাপ রাখতে চাইবে নিশ্চিত৷’

ব্রেট লি বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের উপরেই আমার বাজি থাকবে৷ তবে আফগানিস্তানও দারুণ ক্রিরকেট খেলে চমকে দিতে পারে বড় দলগুলিকে৷ আফগানদের ব্যাটিং লাইনআপ তারকাখচিত না হলেও বোলাররা অত্যন্ত ধারাবাহিক৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.