মুম্বই: নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনেছেন তাঁর স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকি। নওয়াজের সঙ্গে তাঁর পরিবারের চার সদস্যও অভিযুক্ত। তবে এখনই গ্রেফতার করা হচ্ছে না অভিনেতাকে। গ্রেফতারের ওপর স্থগিতাদেশ দিয়েছে এলাহাবাদ হাইকোর্ট।

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির আইনজীবী নাদিম জাফার জাইদি বলেছেন যে অভিনেতা এবং তাঁর পরিবারের চার সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রেফতারিতে স্থগিতাদেশ দিয়েছে এলাহাবাদ হাইকোর্ট। এই চার অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন নওয়াজউদ্দিন এর দুই ভাই ফাইজুদ্দিন ও আয়াজুদ্দিন, মা মেহেরুন্নিসা এবং আরেক ভাই মুনাজউদ্দিন।

নওয়াজউদ্দিন ও তাঁর দুই ভাই ও মায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন আলিয়া। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এলাহাবাদ হাইকোর্ট সেই গ্রেফতারের উপর স্থগিতাদেশ দায়ের করেছেন। নওয়াজের আরেক ভাই মুনাজউদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি আলিয়াকে মারধর ও অত্যাচার করতেন। এছাড়াও এক নাবালিকাকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ রয়েছে তার উপর। একাধিক অভিযোগে অভিযুক্ত তিনি। তাই তার গ্রেফতারের উপর স্থগিতাদেশ জারি হয়নি।

নওয়াজের বিরুদ্ধে আলিয়ার অভিযোগ, ১০ বছর বৈবাহিক জীবন হলেও, বিয়ের পরেই শুরু হয়েছিল তাদের মধ্যে সমস্যা। বিগত ৪-৫ বছর ধরে তাঁরা আলাদাই রয়েছেন। আলিয়া জানাচ্ছেন, বিয়ের পরেই তিনি বুঝে গিয়েছিলেন নওয়াজ ও তাঁর দাদা কেউ মহিলাদের সম্মান করে কথা বলতে জানেন না। কথায় কথায় অপমানিত হতে হতো তাঁকে।নওয়াজ খুব চিৎকার চেঁচামেচি করতেন। নওয়াজের এক ভাই তাঁকে মারধর করতেন।

আলিয়ার দাবি, নওয়াজের পরিবারে এটা আগেও হয়েছে। বাড়ির বউদের উপর তারা নাকি এভাবেই অত্যাচার করে। যার জন্য তাদের পরিবারের উপর রয়েছে সাতটি মামলার দায়। আলিয়ার কথায়, নওয়াজউদ্দিন অভিনেতা হিসেবে বড় মাপের হলেও, মানুষ হিসেবে তা কেন হতে পারেননি!

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।