লখনউ- ধর্মনিরপেক্ষ ভারতে ১৯৯২ সালে যে উন্মত্ত পরিবেশ তৈরি হয়েছিল তার পর সরযূ-গোমতীর ধারা গিয়ে বিতর্কের স্রোত বয়েই চলেছে। দাবি-পাল্টা দাবিতে আইনের ইতিহাসে এক জটিলতর মামলার রায়দান। সেই পরিপ্রেক্ষিতে এলাহাবাদ হাই কোর্টের রায়টি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।

২০১০ সালের অযোধ্যা মামলার রায়ে এলাহাবাদ হাইকোর্ট ঘোষণা করে, বিতর্কিত রাম জন্মভূমি ও বাবরি মসজিদ সংলগ্ন চত্বর তিনভাগে সমবণ্টিত হবে। রায়ে বলা হয়েছিল, ২.৭৭ একর জমি ভাগ হবে তিন পক্ষের মধ্যে। এই ভাগের ১/৩ অংশ যাবে রামলালা অনুকূলে। যার প্রতিনিধিত্ব করছে হিন্দু মহাসভা।

আরও এক ১/৩ অংশ পাবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। বাকি ১/৩ অংশ পাবে নির্মোহী আখড়া। সেই রায়কেই চ্যালেঞ্জ করা হয় সুপ্রিম কোর্টে । ২০১১ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্টের রানে স্থগিতাদেশ জারি করে সুপ্রিম কোর্ট। বিতর্কিত জমি নিয়ে চলা এই আইনি লড়াইয়ের ফলাফল জানতে তৈরি দেশ ও আন্তর্জাতিক মহল।

সৌ- অযোধ্যা মামলা দিনপঞ্জি, উইকিপিডিয়া

2010 30 September The Allahabad High Court pronounces its verdict on four title suits relating to the Ayodhya dispute on 30 September 2010. Ayodhya land to be divided into three parts. ⅓ goes to Ram Lalla represented by Hindu Maha Sabha, ⅓ to Sunni Wakf Board, ⅓ goes to Nirmohi Akhara

উল্লেখ্য এই রায়ের ঠিক ৯ বছরের মাথায় ঐতিহাসিক অয্যোধ্যা মামলার রায় দিতে চলেছে সুপ্রিম কোর্ট। রায় কোন দিকে যায় সেদিকেই তাকিয়ে এখন গোটা দেশের মানুষ।