কলকাতা: পুজোর আগে পশুপ্রেমীদের জন্য সুখবর৷ আগামী ২ অক্টোবর থেকে খুলছে আলিপুর জু-সহ রাজ্যের সব চিড়িয়াখানা৷ তবে করনো আবহে প্রবেশের ক্ষেত্রে থাকবে বেশ কিছু নিয়ম৷ টিকিট বুকিং হবে অনলাইনে৷

ধীরে ধীরে ফের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে বাংলা৷ আনলক ফোরে এবার রাজ্যের সমস্ত চিড়িয়াখানার ছাড়াও চলতি মাসেই খুলছে বিভিন্ন পার্ক এবং উদ্যান৷

করোনা পরিস্থিতিতে গত ১৭ মার্চ থেকেই চিড়িয়াখানা, পার্ক এবং একাধিক উদ্যান বন্ধ রাখা হয়৷ কাউকেই পার্কের ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি৷ শুধু যারা পার্কের রক্ষনাবেক্ষন করতেন,তারাই প্রবেশ করতে পারতেন৷ প্রায় ছ’মাস পর ফের খুলে দেওয়া হচ্ছে চিড়িয়াখানা, পার্ক এবং একাধিক উদ্যান তবে সংক্রমণ যাতে না ঘটে,তার বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে৷

জেনে নিন কী কী নিয়ম মানতে হবে-

১. এবার থেকে যেকোনও জায়গায় প্রবেশের ক্ষেত্রে টিকিট বুকিং করতে হবে অনলাইনে।
২. ১০ বছরের নিচে এবং ৬৫ বছরের উপরে কাউকে নিয়ে ভ্রমণ করলে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।
৩. পর্যটকদের অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।
৪. বোটিং কিংবা পার্কে কোনও প্রমোদমূলক সামগ্রী ব্যবহারের ক্ষেত্রে স্যানিটাইজার সবসময় ব্যবহার করতে হবে।
৫. করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা দেখা দিলে যেকোনও মূহূর্তে পার্ক কিংবা চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ তা আংশিকভাবে বন্ধ রাখতে পারেন।

প্রবেশের ক্ষেত্রে বেশ কিছু বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে:

১.চিড়িয়াখানা কিংবা পার্কে ঢোকার ক্ষেত্রে প্রত্যেকের থার্মাল চেকিং করা হবে।
২.সকলকে হাত জীবাণুমুক্ত করে ঢুকতে হবে।
৩.জাতীয় উদ্যান কিংবা অভয়ারণ্যের ক্ষেত্রে আধিকারিক ছাড়া অন্য কারও গাড়ি ভিতরে ঢুকতে পারবে না।
৪. পর্যটকদের গাড়িতে একজন যাত্রীর পাশের আসন ফাঁকা রেখে বসতে হবে।
৫. একসঙ্গে ২০ জনের বেশি ঢুকতে দেওয়া হবে না।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।