নয়াদিল্লি: বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর জানিয়েছেন,হরমুজ প্রণালীতে আটকে থাকা ব্রিটিশ তেল ট্যাংকারের সব ক্রু নিরাপদে রয়েছেন৷ ইরানের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁরা এই ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছেন৷ এর জন্য তেহরানে থাকা ভারতীয় দূতাবাস ইরানের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে বলেও তিনি জানিয়েছেন৷

গত ১৯ জুলাই পারস্য উপসাগরের হরমুজ প্রণালী থেকে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি ব্রিটিশ পতাকাবাহী এক তেল ট্যাংকার ‘স্টেনা ইমপেরো’কে আটক করে। ইরানের বক্তব্য, ওই প্রণালী অতিক্রমের সময় নিজের জিপিএস লোকেটর বন্ধ করে জাহাজটি ভুল রুট দিয়ে পারস্য উপসাগরে প্রবেশ করে। ব্রিটিশ তেল ট্যাংকারটিকে এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ইরানের দক্ষিণাঞ্চলীয় ‘বন্দর আব্বাস’ সমুদ্র বন্দরে নিয়ে আসা হয়।

ওই ব্রিটিশ ট্যাংকারটিতে ২৩ জন ক্রু রয়েছেন এবং তাদের মধ্যে ১৮ জনই ভারতীয়। ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর আরও জানান, ইরানের হাতে আটক ভারতীয় ক্রুদের মুক্ত করার জন্য ভারত সরকার সব রকম চেষ্টা চালাচ্ছে।

এর আগে অবশ্য ৪ জুলাই ব্রিটিশ নৌবাহিনী জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে ইরানের একটি সুপার তেল ট্যাংকার আটক করে। লন্ডন দাবি করে, ইরানি ট্যাংকারটি সিরিয়ার জন্য তেল নিয়ে যাচ্ছিল এবং এর ফলে সিরিয়ার ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ’র আরোপিত নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘিত হচ্ছিল। অথচ পশ্চিমা গণমাধ্যমেই খবর বেরিয়েছে, আমেরিকার অনুরোধে সাড়া দিয়ে ইরানের তেল রফতানি শূন্যের কোঠায় নামানোর মার্কিন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ব্রিটিশ সরকার এ কাজ করেছে ৷