নয়াদিল্লি: ‘ইভিএম নয়, চাই ব্যালট পেপার’, এই দাবি নিয়েই দিল্লিতে মহাত্মা গান্ধীর মূর্তির পাদদেশে ধরনায় তৃণমূল সাংসদরা৷ উপস্থিত ছিলেন, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, মালা রায় সহ বহু তৃণমূল সাংসদ৷

প্রসঙ্গত, লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় ৪২টি লোকসভা আসনে জেতার দাবি করেছিল তৃণমূল। এমনকি খোদ তৃণমূল সুপ্রিমোও বাংলায় বিজেপি একটা আসনও জিতবে না বলে দাবি করেছিলেন। কিন্তু গত ২৩শে মে তৃণমূলের সমস্ত হিসাব বদলে যায়, ফলাফল প্রকাশ হতেই দেখা যায় বাংলায় বিজেপির সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলে তৃণমূলের। এরপর দিনের শেষে ফলাফল কার্যত তৃণমূলের চিন্তার কারণ হয়ে ওঠে।

পড়ুন: অনলাইন ভরতির ক্ষেত্রে বাড়ানো হতে পারে সময়সীমা: পার্থ

২ থেকে একধাক্কায় বাংলায় বিজেপির আসন সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় ১৮তে। লোকসভার ভোট পরিসংখ্যান অনুযায়ী রাজ্যের একাধিক বিধানসভা আসনে এগিয়ে বিজেপি। যা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যথেষ্ট চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়৷ যদিও বাংলায় এভাবে গেরুয় উত্থান মানতে নারাজ তৃণমূল নেতৃত্ব। ফলপ্রকাশের প্রায় দুদিন পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে বাংলায় বিজেপির বাড়বাড়ন্তের জন্যে ইভিএম কারসাজিকেই দায়ি করেছিলেন। ভোট পরেই সেই ইভিএম কারসাজির অভিযোগে এখনও সরব দলনেত্রী। শুধু তাই নয়, ভোটগ্রহণে প্রচুর ইভিএম খারাপ, ইভিএমের সঙ্গে ভিভিপ্যাটের গণনা মেলানো নিয়েও উষ্মা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এর আগে নবান্নে মমতা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছিলেন, ‘‘মাত্র দু’শতাংশ ভিভিপ্যাট গোনা হয়েছে। বাকি ৯৮ শতাংশ যে আগে থেকে প্রোগ্রামিং করা ছিল না, তা কে বলতে পারে। আবার ভোটে যে সব ইভিএম খারাপ হয়েছিল, সেগুলি পাল্টানো হয়েছিল। কিন্তু সেগুলিতে মক পোল করে ঠিকঠাক চেক করা হয়েছিল কি না, তা জানা নেই। ওইগুলিতেও আগে থেকে প্রোগ্রামিং করে রাখা হতে পারে।’’

পড়ুন: সন্দেশখালিতে সবকিছু ‘হ্যান্ডেল্ড’ রয়েছে: নুসরত

ইভিএমে কারচুপি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। ফলপ্রকাশের দীর্ঘদিন পর আজ মঙ্গলবার প্রকাশ্যে আসেন অভিষেক। গ্যাসের দাম বৃদ্ধি থেকে একাধিক বিষয়ে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন তিনি। অভিষেক মন্তব্য করেছিলেন, ‘২০০৪ সালে তৃণমূলের ১ জন সাংসদ ছিল। সেখান থেকে এখানে পৌঁছেছে দল। ইভিএম-এ কারচুপি আমরা ধরে ফেলেছি। আমরা ব্যালট ফেরত চাই।’ আর এজন্যে কর্মীদের পথে নামারও নির্দেশ দেন তিনি। শুধু বাংলাতে নয়, পিসির পথে হেঁটে গত দেশজুড়ে আন্দোলন শুরু করা হবে বলেও মন্তব্য করেন অভিষেক।

সোমবার, সপ্তাহের শুরুতেই তৃণমূলের একঝাঁক সাংসদকে ব্যালট পেপার ফেরানোর দাবি নিয়ে দিল্লিতে ধরনা করেন৷