মুম্বই: পুলওয়ামা হামলা গোটা দেশকে বেঁধেছে একসুতোয়৷ সব বিভাজন ভুলে একসুরে প্রতিবাদ জানাচ্ছে সকলে৷ উঠছে প্রবিবেশী দেশের সঙ্গে সব রকমের সম্পর্ক ছিন্ন করে দেওয়ার দাবি৷ মুম্বই হামলার পর থেকে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক ক্রীড়া সিরিজ বন্ধ৷ এবার পুলওয়ামা হামলার পর পাক শিল্পীদের জন্য বন্ধ হল বলিউডের দরজাও৷

অল ইন্ডিয়া সিনে ওয়াকার্স অ্যাসোসিয়েশন সোমবার ঘোষণা করেছে, বলিউডের কোনও প্রজেক্টের সঙ্গে কোনও পাক অভিনেতা-অভিনেত্রী ও শিল্পীকে যুক্ত করা যাবে ন৷ তাদের সাথে কাজ করা যাবে না৷ নির্দেশ অমান্য করে যদিও কোনও সংগঠন পাক শিল্পীদের কাজ দেয় তাহলে সেই সংগঠনকে ব্যান করবে সিনে ওয়াকার্স অ্যাসোসিয়েশন৷ কারণ সবার কাছে দেশ আগে৷

সিনে ওয়াকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রোনক সুরেশ জৈন পুলওয়ামার হামলার নিন্দা করেন৷ জানান, তাঁরা শহিদ পরিবারের পাশে আছেন৷ সন্ত্রাস ও অমানবিকতার আবহে সিনে ওয়াকার্স দেশের পাশে আছে৷ প্রসঙ্গত পাক শিল্পীদের নিষিদ্ধ করার দাবি আগেই জানিয়েছিল মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা৷ মুম্বইয়ের বড় বড় মিউজিক কোম্পানিকে পাক গায়কদের আর সুযোগ না দেওয়ার দাবি জানায়৷ সেই মতো টি সিরিজ আতিফ ইসলাম ও রাহাত ফতে আলি খানের গানের তালিকা ইউটিউব চ্যানেল থেকে সরিয়ে নেয়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।