মুম্বইঃ করোনা মুক্ত হলেন আলিয়া। করোনা জয়ের এই খবর অভিনেত্রী নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জানালেন। আজ নিজের ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি শেয়ার করে তিনি এই কথা জানিয়েছেন। ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘এই একটা বিষয়েই নেগেটিভ আসা ভাল জিনিস’। তার এই পোস্টে দিয়া মির্জা, অনিল কাপুর, সোফি চৌধুরী প্রমুখ বলি তারকা এবং তার বন্ধু বান্ধব, ভক্তরা তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এই মাসের শুরুতেই আলিয়া কোভিড ধরা পড়ে। সেই খবরও তিনি সোশ্যাল মিডিয়ার জানিয়েছিলেন। তারপর থেকেই তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। চিকিৎসকদের সকল পরামর্শ পালন করছেন বলেও তিনি জানান। করোনা আক্রান্ত হয়েও আলিয়া নিজেকে এবং নিজের ভক্তদের সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন পোস্টের মধ্যমে করে গেছেন উৎসাহিত। কিছু দিন আগেই তিনি ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছিলেন, ‘ড্রিমার্স নেভার ওয়েক আপ’।

সম্প্রতি আলিয়ার পরবর্তী ছবি ‘গাঙ্গুবাই কাঠিয়াওয়াড়ি’র টিজার মুক্তি পেয়েছে। ইতিমধ্যে বেশ প্রশংসিত হয়েছে আলিয়ার অভিনয়। এটির পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি, যিনি আলিয়ার কোভিড হওয়ার কিছু দিন পরেই করোনা আক্রান্ত হন। আলিয়ার প্রেমিক রণবীর কাপুরও মার্চ মাসে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন।

আলিয়া তেলেগু ছবিতে ডেবিউ করতে চলেছেন। এস এস রাজামৌলি পরিচালিত ‘RRR’ অভিনয় করছেন আলিয়া। এই ছবিতে অজয় দেবগনও রয়েছেন। অজয়েরও এটি তেলেগু ডেবিউ। হলিউডের রয় স্টিভেনসন, আলিসন ডুডি কেও দেখা যাবে এই ছবিতে। এছাড়া সাউথের এন টি রামা রাও, রাম চরণ, শ্রিয়া সরণ, সামুথিরাকনি প্রমুখ তারকারা রয়েছেন এই ছবিতে। গত বছর করোনার জন্যে মার্চ থেকে বন্ধ ছিল ছবির শুটিং। অক্টোবর থেকে আবার শুটিং শুরু হয়। আলিয়া এই ছবির জন্যে সাইন করেছিল ২০১৯ এ। ছবিতে তার শুটিং শুরু হয়েছিল ৬ ডিসেম্বর ২০২০। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা এই বছর ১৩ অক্টোবরে। তেলেগু ভাষায় মুক্তি পাওয়ার পাশাপাশি ছবিটি হিন্দি, তামিল, কানাডা, মালায়লাম এছাড়া বিভিন্ন ভারতীয় ভাষায় ডাবিং করে মুক্তি পাবে।

অয়ন মুখার্জি পরিচালিত ‘ব্রাহ্মাস্ত্র’ ছবিতে দেখা যাবে আলিয়াকে। এই ছবিতে আলিয়ার সঙ্গে রয়েছেন রনবীর কাপুর ও অমিতাভ বচ্চন। এছাড়া জানা গেছে রনভীর সিং এর সঙ্গে একটি রোম্যান্টিক ছবিতে কাজ করছেন আলিয়া। যেটির পরিচালক করণ জোহার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.