লন্ডন: ২০১৯-২০ মরশুমের শুরুতে ইংল্যান্ডের ক্লাবটি থেকে লোনে ইন্টার মিলানে যোগ দিয়েছিলেন অ্যালেক্সিস স্যাঞ্চেজ। মরশুম শেষ হওয়ার পরেই ইতালির জায়ান্ট ক্লাবে চিলির তারকা স্ট্রাইকারটির পাকাপাকি যোগদান নিয়ে শুরু হয় জল্পনা। বুধবার সিলমোহর পড়েছিল সেই জল্পনায়। ইন্টার মিলান সিইও গিউসেপ্পে মারোত্তা সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন স্যাঞ্চেজকে ম্যাঞ্চেস্টারের ক্লাবটি থেকে পাকাপাকিভাবে দলে নিচ্ছেন তাঁরা। আর বৃহস্পতিবার ইন্টারের সঙ্গে পাকাপাকি চুক্তি সেরে ফেললেন আর্সেনাল প্রাক্তনী। ফ্রি ট্রান্সফারে ২০২৩ অবধি ইতালির ক্লাবে চুক্তিবদ্ধ হলেন স্যাঞ্চেজ।

তিন বছরের চুক্তিতে ইতালির ক্লাবে যোগ দিলেন জাতীয় দলের জার্সিতে ৪৩ গোল করা এই তারকা স্ট্রাইকার। ২০১৯ অগস্টে আর্সেনাল থেকে জাতীয় দলে ভিদালের এই সতীর্থকে ভারতীয় মুদ্রায় সাপ্তাহিক ৪ কোটিরও বেশি পারিশ্রমিকে দলে নেয় ম্যান ইউ। কিন্তু মরশুমে ৪৫ ম্যাচে মাত্র ৫ গোল করা স্যাঞ্চেজ ম্যাঞ্চেস্টারের দলটির কাছে ‘দুঃস্বপ্নে’ পরিণত হন। স্বাভাবিকভাবেই মরশুম শেষে তাঁকে লোনে ছাড়তে দ্বিধা করেনি ইউনাইটেড। মিলানে তাঁর ম্যান ইউ সতীর্থ রোমেলূ লুকাকুর সঙ্গে জুটি বাঁধেন তিনি।

সান সিরোর ক্লাবটির হয়েও যে স্যাঞ্চেজ সফল সেটা বলা যাবে না। সদ্য শেষ হওয়া মরশুমে ইন্টারের জার্সি গায়ে ২৯ ম্যাচ খেলে মাত্র ৪টি ম্যাচে গোল করেছেন চিলির জাতীয় দলের ফুটবলারটি। তবে বেলজিয়ান স্ট্রাইকার লুকাকুর সঙ্গে জুটি বেঁধে ইন্টারকে সদ্য শেষ হওয়া মরশুমে লিগে রানার্স করেন তিনি। ফলস্বরূপ মরশুম শেষে তাঁকে পাকাপাকি দলে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করে তিনবারের ইউরোপ সেরা ক্লাবটি। উল্লেখ্য, চিলির প্রথম ফুটবলার হিসেবে ২০১৮-১৯ মরশুমের শুরুতে ম্যাঞ্চেস্টারে যোগ দিয়েছিলেন স্যাঞ্চেজ।

বুধবার ইউরোপা লিগে লাস্কের বিরুদ্ধে জয়ের পর ম্যান ইউ কোচ ওলে সোল্কজায়ের পাকাপাকিভাবে স্যাঞ্চেজের ইন্টারে যোগ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছিলেন। নরওয়েন কোচ বলেন, ‘ওরা ওকে পছন্দ করেছে। নিঃসন্দেহে এটা ওর জন্য একটা দারুণ সিদ্ধান্ত। স্যাঞ্চেজ ভীষণই ভালোমানের একজন প্লেয়ার। আমরা ওর সেরা ফুটবলটাই দেখতে চাই। কোনও কারণে ও আমাদের ক্লাবে নিজের সেরাটা দিতে পারেনি। তবে পেশাদার ফুটবলার হিসেবে ও ভীষণই উচ্চমানের। ওকে আগামীর শুভেচ্ছা জানাই।’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও