ফাইল ছবি

টিরানা:;  শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল আলবেনিয়া। এখনও পর্যন্ত প্রবল কম্পনে ২৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। ঘটনায় গুরুতর আহত ৬শ’রও বেশি মানুষ। এখনও পর্যন্ত খোঁজ নেই বহু মানুষের। শক্তিশালী এই ভূমিকম্পে রীতিমত বিধ্বস্ত গোটা দেশ। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, কয়েক দশকের মধ্যে এটাই সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। আফটার শকের আশঙ্কায় ভুগছে দেশবাসী।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোর ৪টের কিছু আগে প্রবল এই কম্পন অনুভুত হয়। কম্পনের মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৪ । প্রবল এই ভূমিকম্পে রাজধানী টিরানাসহ সে দেশের পশ্চিম এবং উত্তরাঞ্চল প্রবলভাবে কেঁপে ওঠে। সেই সময় বেশির ভাগ মানুষই ঘুমের মধ্যে ছিল। ফলে অনেকেই বেরিয়ে আসার সুযোগ পাননি বলে জানা যাচ্ছে। প্রবল কম্পনে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে বহু বাড়ি। ফলে সেই ধ্বংসস্তুপের মধ্যে আটকে পড়ে যান অনেকেই। তিরানার ৩০ কিলোমিটার পশ্চিমে ভূমিকম্পটির উৎপত্তি বলে জানিয়েছে মার্কিন ভূতাত্ত্বিক সংস্থা ইউএসজিএস। ভূমিকম্পটি পুরো বলকান অঞ্চলজুড়ে এবং আলবেনিয়া বরাবর আড্রিয়াটিক সাগরের অপর পারে ইতালির দক্ষিণাঞ্চলীয় পুইয়া অঞ্চলেও অনুভূত হয়।

মূল ভূমিকম্পের পর আরও ২৫০টি আফটার শক হয়েছে বলে জানিয়েছেন আলবেনিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওন্তা জাস্কা। যার মধ্যে দুটি আফটার শক ৫ মাত্রার ছিল বলে জানিয়েছেন তিনি। ভূমিকম্পটির উপকেন্দ্র পশ্চিমাঞ্চলীয় দুরেসে ছিল বলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন জাস্কা। দুরেস আলবেনিয়ার প্রধান বন্দর ও পর্যটন স্থান। ইতিমধ্যে সেখানে উদ্ধারকাজ শুরু হয়েছে। বিশ্বের একাধিক দেশ আলবেনিয়াতে উদ্ধার কাজে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আলবানিয়ায় ভূমিকম্পের কয়েক ঘণ্টা পর ৫ দশমিক ৪ মাত্রার আরেকটি ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে বসনিয়া। রাজধানী সারায়েভো থেকে ৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণে মোস্তার নগরীর কাছে ভূমিকম্পটির উপকেন্দ্র ছিল। তবে সেখানে কেউ হতাহত হয়েছে বলে খবর হয়নি। আলবেনিয়ার ভূমিকম্প বিধ্বস্ত এলাকাগুলোতে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে দমকলকর্মী ও সেনা সদস্যরা। উদ্ধারকাজে নেমেছে রেডক্রসের কর্মীরাসহ পুলিশের বিশেষ বাহিনী।

উদ্ধারকাজে সহায়তার জন্য ইতিমধ্যে ইতালি, ফ্রান্স, রোমানিয়া, তুরস্ক, গ্রিস, ক্রোয়েশিয়া, মন্টিনেগ্রো, কসোভো ও সার্বিয়া ২০০ বিশেষ সেনা, যন্ত্রপাতি ও উদ্ধারকাজে প্রশিক্ষিত কুকুর পাঠিয়েছে বলে জাস্কা জানিয়েছেন। বলকান অঞ্চল ভূমিকম্পপ্রবণ। মঙ্গলবারের ভূমিকম্পটিকে আলবেনিয়ায় কয়েকদশকের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প বলে বর্ণনা করেছে কর্তৃপক্ষ। এর আগে ১৯৭৯ সালে আলবেনিয়ায় ৬ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্পে ১৩৬ জন নিহত এবং ১ হাজার জন আহত হয়েছিল।