মুম্বই- করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় চলছে সারা দেশ জুড়ে লকডাউন। এই সময়ে সবচেয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়েছেন দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ। তাই প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ-সহ অন্য আরও বেশ কিছু জায়গায় মোট ২৫ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন অভিনেতা অক্ষয় কুমার। অনবরত সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিওর মাধ্যমে মানুষকে সচেতনও করে চলেছেন তিনি। তবে এখানেই শেষ নয়। এবার মুম্বইয়ের এক সিনেমা হলের মালিককে সাহায্য করলেন অক্ষয়।

লকডাউনের জন্য বন্ধ সিনেমা হল। তাই মুম্বইয়ের গাইটি-গ্যালাক্সি হলের মালিককে অর্থ সাহায্য করলেন অক্ষয়, যাতে তিনি তাঁর কর্মীদের এই সময়ে বেতন দিতে পারেন। মুম্বইয়ের এই সিনেমা হলের মালিক মনোজ দেসাইকে এই লকডাউনের মধ্যেও ব্যাঙ্ক লোন নিতে হয়েছিল যাতে তিনি কর্মীদের বেতন দিতে পারেন। এক সংবাদমাধ্যমে এই খবর পড়ে অক্ষয় তাঁকে ফোন করেন। মনোজ বলছেন, তিন দিন আগে অক্ষয়জি আমায় ফোন করেন। এরকম যদি চলতে থাকে তা হলে তিনি সাহায্য করবেন বলে জানান। সত্যিই উনি দয়ালু।

কিন্তু আমাদেরও একটা রাস্তা বের করতে হবে। আমরা এই সময়ে অনেক এই মাসে বেতন দেওয়ার জন্য আমরা যথেষ্ট ত্রাণ পেয়েছি। কিন্তু সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তার একটা বড় প্রভাব থাকবে। আমরা শুধু কোনও কর্মী ছাঁটাই করতে চাই না এবং তাঁদের বেতনও কাটতে চাই না। ৩মে লকডাউন উঠে যাওয়ার কথা। সেই ততদিনে অনেকটাই ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে এই হলের মালিককে। মনোজ ও তাঁর বিজনেস পার্টনার অরুণ নায়ের ঠিক করেছেন, সিনেমা হল খুললেই হলের টিকিটের দাম তাঁরা বাড়িয়ে দেবেন।

তাই এই অবস্থায় অক্ষয় তাঁদের সাহায্যের প্রস্তাব দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, মার্চের শেষের দিকেই সাহায্যের হাত বাড়িয়েছিলেন খিলাড়ি। অক্ষয় জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ত্রাণ তহবিলে করোনা চিকিৎসার জন্য ২৫ কোটি টাকা তিনি দিচ্ছেন।

টুইটারে একটি পোস্ট করে অক্ষয় লিখেছিলেন, এখন মানুষের জীবনই একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আর এর জন্য আমাদের যতটা সম্ভব করা উচিত। আমি আমার সেভিংস-এর ২৫ কোটি টাকা মোদীজির পিএমকেয়ারস ফান্ডে দিতে চাই। জীবন বাঁচানোই এখন মূল বিষয়। জান হ্যায় তো জাহান হ্যায়। এর উত্তরে ধন্যবাদ জানিয়ে মোদী লিখেছিলেন, মহান উদ্যোগ। ভারতকে সুস্থ করার জন্য আপনারাও দান করতে থাকুন।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও