মুম্বই- হাউসফুল ৪-এ অভিনয় করছেন অক্ষয় কুমার। হাউসফুল সিরিজেরে প্রথম দুটি ছবির পরিচালনা করেছিলেন সাজিদ খান। এই সাজিদ খানের নামেই রয়েছে তিনটি যৌন হেনস্থার অভিযোগ। হ্যাশট্যাগ মি-টু মুভমেন্ট শুরু হওয়ার পরেই উঠে আসে সাজিদের বিরুদ্ধ যৌন হেনস্থার এই তিন অভিযোগ। অভিযোগকারীনীদের মধ্যে রয়েছে অভিনেত্রী সালোনি চোপড়াও। হাউসফল ৪-ও সাজিদেরই পরিচালনা করার কথা ছিল। কিন্তু ২০১৮-র অক্টোবরে তাঁর নামে মি-টু অভিযোগ আসার পরেই পরিচালকের জায়গা হারান।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে ট্রেলার লঞ্চের দিন এই প্রসঙ্গে অক্ষয় জানান, সাজিদ খান নির্দোষ প্রমাণিত হলে তিনি ভবিষ্যতে তাঁর সঙ্গে কাজ করবেন। অক্ষয় বলেন, আমি জানি না আসলে কী হয়েছিল। কিন্তু সবকিছু ঠিক থাকলে আর ও নির্দোষ প্রমাণিত হলে আমি ভবিষ্যতে ওর সঙ্গে কাজ করব।

বিটাউনে কানাঘুষো খবর, মি-টু অভিযোগ আসার আগে এই ছবির প্রায় ৬০ শতাংশ করে ফেলেছিলেন সাজিদ। কিন্তু অভিযোগ আসার সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে সরে যেতে বলা হয়। সেই জায়গায় ছবির পরিচালনা করেন ফারহাদ সামজি। তাই ছবির ক্রেডিটে তাঁর নাম থাকবে কি না এই প্রশ্ন করা হলে অক্ষয় বলেন, এটা ঠিক যে ছবির ৬০ শতাংশ পরিচালনা সাজিদই করেছিল। কিন্তু এই সিদ্ধান্ত শুধু ফ্ক্স স্টার স্টুডিওই নিতে পারবে।

হ্যাশট্যাগ মি-টু মুভমেন্ট শুরু হওয়ার পরে বলিউডের প্রযোজনা সংস্থাগুলিতে অনেক পরিবর্তন আসে বলে জানান অক্ষয়। অক্ষয় বলেন, অনেক পরিবর্তন হয়েছে। সাজিদ নাদিওয়ালা সংস্থা-সহ যে প্রযোজনা সংস্থাগুলি রয়েছে সবকটিতেই এখন যৌন হেনস্থার বিষয়গুলি নিয়ে কাজ করার জন্য একজন করে আধিকারিক থাকছেন। এখন নিরাপত্তা অনেক বেড়েছে।

প্রসঙ্গত, হাউসফুল ৪ ছবিতে অক্ষয় কুমারের সঙ্গে অভিনয় করেছেন কৃতী স্যানন, রীতেশ দেশমুখ, ববি দেওল, পূজা হেগড়ে, চাঙ্কি পাণ্ডে সহ আরও অনেকে। ছবির ট্রেলার ইতিমধ্যেই মুক্তি পেয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।