সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: শিব পুজোর মরসুমে দাম চড়া হচ্ছে আকন্দ ফুলের। এমনটাই জানা যাচ্ছে ফুল বাজার সূত্রে। ফুল বাজারের দাম খুব দ্রুত পরিবর্তন হয়। তবে দামের ফারাক বেশি লক্ষ্য করা যায় কোনও পুজোর মরসুম এলে। সেই প্রভাবটাই পড়েছে আকন্দ মালা এবং ফুলের উপর। আগামী কিছুদিনের মধ্যে আরও ব্যাপক হারে দাম বৃদ্ধি পাবে এই ফুলের।

আরও পড়ুন: কোন দিকে ঘুরছে আপনার ভাগ্যের চাকা?

শ্রাবণ মাসকে মহাদেবের মাস বলে মনে করেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। সারা মাস ধরে চলে শিবের পূজা। শিবের ফুল হিসাবে চিহ্নিত করা হয় আকন্দ। যে সময়ে যে দ্রব্যের চাহিদা খুব বেশি হয় তখন ওই জিনিসের বাজারে দর বেড়ে যায়।

এই সময়ে বহু মানুষ তারকেশ্বরের মন্দিরে শিবের মাথায় জল ঢালতে যান। অনেকে শিবের কাছে কিছু মনস্কামনা পূরণের জন্য মানদ করেন। এক মাস ক্লিচ্ছ সাধনের পড়ে শ্রাবণ মাসের শেষ শনিবারে গিয়ে শিবের মাথায় গিয়ে ঢালেন বাঁকে করে নিয়ে যাওয়া জল। অনেকে ডণ্ডি খাটেন। স্বাভাবিকভাবেই শিবের পুজোর জন্য আকন্দ মালার ব্যাপক চাহিদা থাকে। তাই দামও বেশি।

আরও পড়ুন: ইস্টবেঙ্গল দিবসে লাল-হলুদের আইএসএল শপথ

ফুল বাজার কমিটির কর্তা গৌতমবাবু বলেন , “ ফুলের ক্ষেত্রে দামের কোনও ঠিকঠাক থাকে না। নিয়মিত দাম ওঠানামা করে। কিন্তু এই মাসটা অন্য ফুলের দাম না বাড়লেও বেড়েছে আকন্দ ফুলের দাম। এটা আরও বাড়বে আগামী সপ্তাহ থেকে।”

একইসঙ্গে তিনি বলেন, “সাধারনত এক কুঁড়ি আকন্দের দাম ২০ থেকে ৩০ টাকা হয়। এটা এখন ৬০ টাকা কুঁড়ি প্রতি হয়ে গিয়েছে। সোমবার শিবের বার। ওইদিন আকন্দের দাম কুঁড়িতে প্রতি ১০০ টাকা ছাড়িয়ে যাবে।” বেলপাতার দামও অনেকটা বেশি যাচ্ছে বলে জানাচ্ছেন তিনি। ১০ টাকার এক বান্ডিলের জায়গায় ২০ থেকে ২৫ টাকা প্রতি বান্ডিলে বিক্রি হচ্ছে।

আরও পড়ুন: অসম থেকে ‘অনুপ্রবেশ’ আটকাতে কড়া বাংলার পুলিশ

পুরাণ মতে সমুদ্র মন্থনে ওঠা বিষ এই শ্রাবণ মাসেরই পান করেছিলেন মহাদেব। সেই প্রচণ্ড বিষ পান করে তাঁর সারা শরীর নীল হয়ে গিয়েছিল। এ কারনেই মহাদেবের আর এক নাম নীলকণ্ঠ। কিন্তু সেই বিষ যাতে কোনওভাবেই শিবের শরীরে ছড়িয়ে না পরে, সেই কারণে শিবের গলা হাত দিয়ে চেপে ধরে রাখে পার্বতী৷ এরপর শিবের গলার রং নীলবর্ণ ধারণ করে৷ শিবের সেই রূপের নাম নীলকন্ঠ৷

শ্রাবন শিবরাত্রির দিনই এই ঘটনাটি ঘটে৷ তাই এই রাতেই শিবের আরাধনা করা হয়। এতে পূণ্য লাভ হয় বলে বিশ্বাস। শ্রাবণ মাসকে উৎসবের মাস হিসেবেও মনে করা হয়। রাখিবন্ধন, নাগ পঞ্চমী, ওনাম, কাজোরি পূর্ণিমার মতো একাধিক উত্সব পালন করা হয় শ্রাবণ মাসে।

আরও পড়ুন: শামি-অশ্বিনের সাঁড়াশি আক্রমণে বেকায়দায় ইংল্যান্ড