ছবি- প্রতীকী

জয়পুর: ধর্ষণের চেষ্টায় ঘটনায় এক মন্দিরের পূজারিকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দিল আদালত। সাত বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে ওই পূজারির বিরুদ্ধে। আদালতের নির্দেশ জেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে তাকে।

গত বৃহস্পতিবারের ঘটনা। রাজস্থানের আজমেরে কল্যাণীপুরা এলাকার কালিচট মন্দিরের পূজারির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ ওঠে। মন্দিরের ভিতরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা হয়েছিল বলে অভিযোগ।

৪৯ বছরের স্বামী শিবানন্দ ওরফে বলবন্তকে প্রথমে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫১ ধারায় গ্রেফতার করা হয়েছিল। নির্যাতিতা নাবালিকার মেডিক্যাল পরীক্ষার পর তার বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু করা হয়। আলওয়ার গেট থানার স্টেশন অফিসার হরপাল সিংহ এ কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, পকসো আইনে সংশোধনীর পর কোনও মেয়ে সম্ভ্রমহানির চেষ্টাও যৌন নিগ্রহের সামিল এবং মেডিক্যাল পরীক্ষায় প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে যে ধৃত নাবালিকার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছিল।

নির্যাতিতার বাবা অভিযোগ করেন যে, ওই পূজারি তাঁর মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিল। তাঁর অভিযোগ, তিনি ও তাঁর মেয়ে কালিচট মন্দিরে গিয়েছিলেন। পরে তিনি পাহাড়ের কিছুটা উপরে হনুমান মন্দিরে যেতে মনস্থ করেন। কিন্তু ছোট্ট মেয়ে পাহাড়ে উঠতে পারবে না ভেবে তিনি তাকে কালিচট মন্দিরে রেখে যান। হনুমান মন্দির থেকে ফিরে এসে তিনি দেখেন পূজারি তাঁর মেয়েকে মন্দির সংলগ্ন নিজের ঘরে ডেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করছে।