নয়াদিল্লি:  টানা ৪৮ ঘন্টা ধরে জ্বলছিল দিল্লি। বর্তমানে পরিস্থিতি কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে দাবি পুলিশের। যদিও বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, উত্তর-পূর্ব দিল্লির বেশ কিছু জায়গা থেকে এখনও কিছু বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে পুরো ঘটনা সরজমিনে খতিয়ে দেখতে পথে নেমেছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। সংঘর্ষে যে সমস্ত জায়গা সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সেখানে ছুটে গিয়েছেন।

কথা বলেছেন স্থানীয় মানুষজনের সঙ্গে। পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার বিস্তারিত রিপোর্ট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে দেবেন বলে জানা যাচ্ছে। আইন-শৃঙ্খলা ইস্যুতে এই মুহূর্তে কি পরিস্থিতি রয়েছে তা মন্ত্রককে বিস্তারিত জানাবেন বলে জানা গিয়েছে। এরপরেই আগামী পদক্ষেপ কি হবে সেই রিপোর্ট পাওয়ার পরেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, জাফরাবাদের রাস্তায় নেমে মানুষের সঙ্গে কথা বললেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। সোমবার থেকে উত্তপ্ত দিল্লি। বুধবার দুপুর পর্যন্ত ২২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। বুধবারই উত্তর-পূর্ব দিল্লির জাফরাবাদে গেলেন আজিত দোভাল।ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে সেখানে গিয়েছেন তিনি। তাঁর দাবি, ‘মানুষের মধ্যে সহাবস্থান আছে। কিছু দুষ্কৃতী এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। মানুষ তাদের দূরে সরিয়ে দিচ্ছে। পুলিশ পুলিশের কাজ করছে।’

মঙ্গলবার রাতেই দিল্লির পুলিশকর্তাদের নিয়ে বৈঠক সারেন দোভাল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে সেব্যাপারে পুলিশের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হয় দোভালের। ৩বুধবার পর্যন্ত উত্তর-পূর্ব দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় হিংসা-সংঘর্ষের জেরে ২২ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। দু’শোরও বেশি মানুষ সংঘর্ষের জেরে জখম হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।