রাঁচি: দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে চলতি গান্ধী-ম্যান্ডেলা সিরিজের তৃতীয় টেস্টে অনবদ্য এক বিশ্বরেকর্ড গড়েন ভারতের সহঅধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে৷ এমন এক নজির, যার সঙ্গে শুধু তিনি একা জড়িত নন, ক্রিজের অপর প্রান্তের তাঁর ব্যাটিং পার্টনাররাও জড়িয়ে রয়েছেন৷

রাঁচিতে রোহিত শর্মার সঙ্গে চতুর্থ উইকেটের জুটিতে ২৬৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন রাহানে৷ এটি তাঁর টেস্ট কেরিয়ারের ৬১তম ম্যাচে ২০০ তম টেস্ট পার্টনারশিপ৷ ২০০টি পার্টনারশিপের মধ্যে রাহানে একবারও রান-আউট হননি৷ একবারও রান-আউট করেননি কোনও পার্টনারকে৷ অর্থাৎ এ-যাবৎ টেস্ট কেরিয়ারে কখনও রান-আউটের ঘটনায় জড়াননি অজিঙ্কা৷ টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি একটি বিশ্বরেকর্ড৷

আরও পড়ুন: সানি-বীরুর সঙ্গে এলিট ক্লাসে রোহিত, ৪৯৭ রানে ইনিংস ডিক্লেয়ার ভারতের

রাহানে ছাড়া একশো’র বেশি টেস্ট ইনিংস খেলা আরও চারজন ক্রিকেটার গোটা কেরিয়ারে একবারও রান-আউট হননি৷ যাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন কপিল দেব৷ এছাড়া মুদাস্সর নজর, পিটার মে ও গ্রেম হিকের এমন নজির রয়েছে৷

ভারতীয়দের মধ্যে রান-আউট হওয়ার সব থেকে খারাপ নজির রয়েছে সৈয়দ কিরমানি, মহম্মদ আজহারউদ্দিন ও অনিল কুম্বলের৷ তিনজনেই টেস্ট কেরিয়ারে ৭বার করে রান-আউট হয়েছেন৷ রাহুল দ্রাবিড় সবথেকে বেশি ১২ বার অপর প্রান্তের সঙ্গীকে রান-আউট করিয়েছেন৷ শতাংশের বিচারে রান-আউট হওয়ার সব থেকে খারাপ রেকর্ড রয়েছে সৈয়দ আবিদ আলির৷ ৫৩টি ইনিংসের মধ্যে তিনি মোট ৬ বার রান-আউট হয়েছেন৷

আরও পড়ুন: সচিনের সঙ্গে এলিট ক্লাবে উমেশ

রাঁচিতে এমন অনবদ্য রেকর্ড গড়ার পথে টেস্ট কেরিয়ারের ১১ নম্বর সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন রাহানে৷ ১৭টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ১৯২ বলে ১১৫ রান করে আউট হন তিনি৷ ২০১৬ সালের পর আবার ঘরের মাঠে টেস্ট সেঞ্চুরি করলেন রাহানে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।