নয়াদিল্লি: আগাম কোনও নোটিশ ছাড়াই এয়ার ইন্ডিয়ার ৪৮ পাইলটকে ছাঁটাইয়ের অভিযোগ উঠেছে। রাতারাতি কর্মহীন হয়ে পড়লেন ওই পাইলটরা। করোনা পরিস্থিতিতে এমনিতেই ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়া। তারই জেরে এবার কর্মী সংকোচনের পথে হাঁটছে সংস্থাটি।

দেশজুড়ে বেড়েই চলেছে নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। করোনা আবহে এমনিতেই হাতেগোনা কয়েকটি বিমান উড়ছে। কখনও বন্দে ভারত মিশন বা কার্গো বিমানের আনাগোনাই বেশি।

বেসরকারি একাধিক সংস্থার পাশাপাশি যাত্রী না হওয়ায় ভয়ঙ্কর ক্ষতির মুখে রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়া। এই পরিস্থিতিতে এবার কোনও নোটিশ ছাড়াই ছাঁটাইয়ের অভিযোগ সংস্থার ৪৮ পাইলটকে।

ছাঁটাই বা কর্মী সংকোচন নিয়ে কর্মীদের সঙ্গে কোনও আলোচনাই হয়নি এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষের। জানা গিয়েছে, ছাঁটাই হওয়া পাইলটদের অনেকে কর্মরত থাকলেও বেশ কয়েকজন ছুটিতে রয়েছেন।

আচমকা তাঁদের ছাঁটাই করা হয়েছে বলে তাঁরা জানতে পেরেছেন। এয়ার ইন্ডিয়ার মতো রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার এই ভূমিকায় যারপরনাই ক্ষুব্ধ সংস্থার ছাঁটাই হওয়া ওই কর্মীরা। বাকি কর্মীরাও কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তে হতবাক।

এদিকে, জানা গিয়েছে আগেই কাজ ছাড়তে চেয়েছিলেন ছাঁটাই হওয়া ওই ৪৮ পাইলট। ২০১৯ সালে তাঁর ইস্তফাপত্র জমাও দিয়েছিলেন।

তবে এয়ার ইন্ডিয়ার তরফেও তাঁদের আরও ৬ মাস কাজ চালিয়ে যেতে বলা হয়েছিল। সেই মতো কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন ওই পাইলটরা। নির্ধারিত সময় পরে তাঁদের কাজ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়ার তরফে।

তবে শুক্রবার হঠাৎই তাঁদের ছাঁটাই করার কথা জানানো হয় সংস্থার তরফে। রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থার এই ভূমিকায় ক্ষুব্ধ পাইলটরা। পাইলটদের সংগঠনও এয়ার ইন্ডিয়ার এই আচরণের প্রতিবাদ জানিয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও