মুম্বই: মাদক মেশানো পানীয় খাইয়ে বিমান সেবিকাকে গণধর্ষণ৷ এমনই অভিযোগ উঠল বিমান সেবিকার বন্ধু ও বন্ধুর রুম মেটদের বিরুদ্ধে৷ ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি মুম্বই শহরতলির আন্ধেরির৷ ওই বিমান সেবিকার অভিযোগের ভিত্তিতে প্রধান অভিযুক্ত স্বপ্নিল বাদোদিয়াকে গ্রেফতার করেছে আন্ধেরি থানার পুলিশ৷

পুলিশ জানিয়েছে, স্বপ্নিল নিজেও বিমান সংস্থায় চাকরি করে৷ সেই সূত্রেই দু’জনের আলাপ৷ গত মঙ্গলবার গোনি নগর এলাকার ফ্ল্যাটে বিমান সেবিকাকে ডিনারের আমন্ত্রণ জানায় সে৷ ওই ফ্ল্যাটেই অন্যান্যদের সঙ্গে পেয়িং গেস্ট হিসাবে থাকে স্বপ্নিল৷ ফ্ল্যাটে গিয়ে দেখেন স্বপ্নিল ছাড়াও রুম মেটরা সেখানে রয়েছে৷

এরপর খাওয়া দাওয়ার পর বিমান সেবিকাকে রঙিন পানীয় খেতে দেয় স্বপ্নিল৷ মহিলার অভিযোগ, ওই পানীয় খাওয়ার পরই আচ্ছন্ন হয়ে পড়েন তিনি৷ পরের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠেই মাথা ঝিমঝিম করতে থাকে৷ নিজেকে কেমন ঘোরের মধ্যে পান৷ বুঝতে পারেন, আগের দিন রাতে পানীয়র মধ্যে মাদক মেশানো হয়েছিল৷ সেটি খেয়ে শরীরে অস্বস্তি শুরু হয়৷ আচ্ছন্ন হয়ে যাওয়ার পর স্বপ্নিল ও তার বন্ধুরা তাঁর সঙ্গে জোরজবরদস্তি করে৷

এরপরই স্থানীয় থানায় স্বপ্নিল ও তার বন্ধুদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ আনেন ২৫ বছর বয়সী ওই তরুণী৷ সেই অভিযোগের ভিত্তিতে স্বপ্নিলকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ডি ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ পুলিশের জেরায় ধর্ষণের কথা স্বীকার করে নিয়েছে স্বপ্নিল৷ তবে রুমমেটদের কেউ এই ঘটনায় জড়িত নয় বলেই পুলিশের কাছে দাবি জানায় সে৷ তাকে আদালতে তোলা হলে বিচারক অভিযুক্তের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন৷