নয়াদিল্লি: এয়ার ইন্ডিয়া পাইলট এবং কেবিন ক্রু ছাড়া বাকি ‌স্থায়ী কর্মীদের এখন কম সময়ে সাপ্তাহিক কাজের অপশন দেওয়া হয়েছে। যার ফলে ওইসব কর্মীদের সপ্তাহে তিন দিন কাজ করতে হবে এবং মোট বেতনের ৬০ শতাংশ পাবেন। এই প্রকল্পটি শুক্রবার থেকে কার্যকর করা হচ্ছে।

গোটা বিষয়টি কর্মীদের ইচ্ছার উপর নির্ভর করছে এবং তা এক বছরের জন্য করা যাবে এবং বিমানসংস্থা অনুমতি দিলে সেটা আরও দু’বছর বাড়ানো যেতে পারে। বর্তমানে এয়ার ইন্ডিয়া ১৩,০০০ স্থায়ী কর্মী রয়েছে, যাদের মাসিক বেতন বাবদ বিল হয় ২৩০ কোটি টাকা। বিমান সংস্থাটির পক্ষ থেকে জানানো হয়নি এর ফলে কতটা অর্থ বাঁচবে বলে আশা করছে। তার কারণ পুরোটাই নির্ভর করছে কতজন কর্মী এই অপশন গ্রহণ করে তার উপর।

এছাড়া শুক্রবার এই বিমান সংস্থাটি আরো একটি সিদ্ধান্ত নেয়, করোনা ভাইরাস এর জন্য স্পেশাল কোয়ারান্টাইন লিভ চালু করছে। এর ফলে কোনও কর্মী যদি করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসে যেমন কেবিন ক্রু কোন যাত্রীর সংস্পর্শে এসেছেন পরে জানা গিয়েছে ওই যাত্রীটি করোনা আক্রান্ত তাহলে সে তৎক্ষণাৎ ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে যাবে সরকারি অথবা বিমানসংস্থার পরামর্শ মতো।

হোম কোয়ারেন্টাইনে ১৪ দিন থাকার জন্য সবেতন ছুটি পাবে। এই যে ১৪ দিন ছুটি নিচ্ছেন তার জন্য তার জমানো ছুটি কাটা হবে না। এই নির্দেশিকা জারি থাকছে করোনা অতি মহামারীর সময়কালে, যা বর্তমানে ২০২০ সালের ৩১ অগস্ট পর্যন্ত রাখা হয়েছে। যদি কেউ সপ্তাহে তিন দিনের কাজে অপশন গ্রহণ করে সে ক্ষেত্রে সে কিন্তু বাকি দিনগুলো অন্য কোন কাজ গ্রহণ করতে পারবে না। ‌

যারা এই সপ্তাহে তিন দিনের ‌ অপশন গ্রহণ করবে তাদের বেসিক পে, ডিএ এবং অন্যান্য ভাতা সেই অনুপাতে কমে যাবে যাতে মোট বেতনের ৬০ শতাংশ হয়। তবে মেডিকেল এবং প্যাসেজ ফেসিলিটি এবং পেনশনে অর্থ প্রদান ইত্যাদি ক্ষেত্রে কোন পরিবর্তন হবে না।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।