নয়াদিল্লি: পঞ্চমদফার ভোট শেষ হতেই মৃত্যুর ২৮ বছর পর ফের দেশের রাজনীতিতে ফিরে এলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী৷ আর তাঁকে টেনে আনেন মোদীই৷ নমোর চ্যালেঞ্জ ছিল, বাকি দুই দফার ভোট কংগ্রেস রাজীব গান্ধীর নামে লড়ুক৷ কংগ্রেস সেই চ্যালেঞ্জ নেয়নি৷ তবে নমোর দেখানো পথেই চলল বিজেপি৷

ষষ্ঠ দফার ভোটের আগে শিখ গণহত্যার স্মৃতি উস্কে দিল বিজেপি৷ সেই সঙ্গে রাজীব গান্ধীর একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেওয়া হয়েছে৷ ৮৪’র শিখ গণহত্যা পরবর্তী একটি ভিডিও ফুটেজ৷ যেখানে রাজীবকে শিখ গণহত্যা প্রসঙ্গে বলতে শোনা যায়, একটি প্রকাণ্ড গাছ পড়ে গেলে পৃথিবী তো কেঁপে উঠবেই৷

১৯৮৪ সালে ৩১ অক্টোবর৷ রাজধানী দিল্লিতে শিখ দেহরক্ষীর গুলিতে খুন হন ইন্দিরা গান্ধী৷ তারপর দিল্লি জুড়ে শুরু হয় শিখ নিধন যজ্ঞ৷ যেখানে তিন হাজার শিখকে নির্বিচারে খুন করা হয়৷ অভিযোগ, কংগ্রেস নেতাদের একাংশ সেই খুনের ষড়যন্ত্রে সামিল হন৷ তাদের মধ্যে সজ্জন কুমার, জগদীশ টাইটলার, কমল নাথ ও এইচকেএল ভগতের নাম ঘুরে ফিরে আসে৷ বিজেপির ট্যুইটে এই নেতাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে৷

উল্লেখ্য, আগামী ১২ মে দিল্লির সাতটি নির্বাচনী কেন্দ্রে ভোট৷ এমন সময় শিখ গণহত্যার স্মৃতি উসকে দিল বিজেপি৷ এর মধ্যেও রাজনীতির গন্ধ খুঁজে পাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ মহল৷ জানিয়েছে, খুব অংক কষে পরিকল্পনা করে রাজীব গান্ধীর নাম ষষ্ঠ দফার ভোটের আগে টেনে এনেছে বিজেপি৷ কারণ ১২মে দিল্লির সব কটি কেন্দ্রে ভোট৷

আর শিখ গণহত্যার ঘটনা ঘটেছিল এই দিল্লিতে৷ এখনও সেখানে অনেক শিখ পরিবার বসবাস করেন৷ তারা কেউ আজও সেই ভয়ানক ঘটনার কথা ভুলতে পারেননি৷ তাই ভোটের সময় সেই যন্ত্রনার কথা মনে করিয়ে কংগ্রেসকে চাপে ফেলার কৌশল নিয়েছে বিজেপি৷