ঢাকা:  ভয়াবহ রমনা বটমূলের সেই বিস্ফোরণকে মাথায় রেখেই বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠানে নিরাপত্তার বেড়াজালে মুড়ে ফেলা হয়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা সহ বিভিন্ন এলাকা৷ রবিবার বাংলার বরষ বরণ অনুষ্ঠান৷ ১৪২৬ বঙ্গাব্দকে স্বাগত জানাতে প্রতিবারের মতো এবারেও হবে বিরাট মঙ্গল শোভাযাত্রা৷ সেই শোভাযাত্রায় নাশকতা ঘটাতে পারে জঙ্গিরা৷ ফলে আগাম সতর্কতা সহ বিশেষ সাইবার নিরাপত্তা তৈরি করা হয়েছে৷

শনিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান পরিদর্শন করেন রমনা বটমূল প্রাঙ্গন৷ তারপর তিনি জানান, বাংলা বর্ষবরণের অনুষ্ঠানকে ঘিরে নাশকতার কোনও আশঙ্কা নেই৷ গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে। নববর্ষ উদযাপনে কেউ কোনও বাধা সৃষ্টি করতে পারবে না।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ যেন উসকানিমূলক বার্তা ও গুজব ছড়াতে না পারে সেজন্য সাইবার নিরাপত্তা দলের নজরদারি রয়েছে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি বলেন, পহেলা বৈশাখ (পয়লা বৈশাখ) এখন জাতীয় উৎসবে পরিণত হয়েছে৷ সারাদেশের মানুষ যাতে সুন্দরভাবে নববর্ষ উদযাপন করতে পারে সেজন্য নিরাপত্তা বাহিনীকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

২০০১ সালের ১৪ এপ্রিল তারিখে বাংলার ১৪০৮ সালে ১ বৈশাখ ঢাকার রমনা বটমূলে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান হচ্ছিল৷ সেই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নাশকতা ঘটায় হুজি-বি জঙ্গি সংগঠন৷ বিস্ফোরণে মৃত্যু হয় ৯ জনের৷ জখম হন অনেকে৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এবারের বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে নাশকতার কোনও আশঙ্কা নেই।