স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিজেপির মহিলা মোর্চা সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল। ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে যাঁর দেশজোড়া খ্যাতি। যাঁর ডিজাইন করা পোশাক পরেন তাবড় সেলিব্রিটিরা। সেই অগ্নিমিত্রা পলের বিরুদ্ধেই শাড়ির বিজ্ঞাপন দেওয়ার অভিযোগ উঠল দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্ৰুপে।

অগ্নিমিত্রার বিরুদ্ধে অভিযোগ, দলের মহিলা মোর্চার বিভিন্ন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে তিনি বলে পাঠাচ্ছেন যে, তাঁর তৈরি শাড়িই কিনতে হবে। সেই শাড়ির অবশ্য বিশেষত্ব রয়েছে। সুতির সাদা শাড়ির পুরো জমিনে পদ্মফুল আঁকা। উওরবঙ্গের জন্য শাড়ির দাম ৩৫০টাকা, কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী জেলার জন্য দাম ২৮০ টাকা ধার্য করা হয়েছে।

পদ্মফুল আঁকা এই শাড়ি রাজ্য অফিস থেকে পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি। অথচ রাজ্য নেতৃত্বের দাবি, তাঁরা এব্যাপারে কিছুই জানেন না। প্রশ্ন উঠেছে, কার অনুমতি নিয়ে এই শাড়ির ব্যবসা তিনি করছেন? ‌

জানা গিয়েছে, মহিলা মোর্চার অনেকেই তাঁর এই আচরণে ক্ষুব্ধ। ইতিমধ্যেই অগ্নিমিত্রার এই বিজ্ঞাপন দিল্লিতে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের পাঠানো হয়েছে।

তবে শাড়ি বিক্রির কথা স্বীকার করে নিয়েছেন অগ্নিমিত্রা। তিনি বলেছেন, দলের ডিসিপ্লিন বজায় রাখতেই প্রথমেই ইউনিফর্মের কথা মাথায় আসে। অগ্নিমিত্রার কথায়, প্রত্যেক সভায় সবাই এক শাড়ি পড়ে থাকলে দেখতে সুন্দর লাগে।সেই ভাবনা থেকেই শাড়ি তৈরি করা হয়েছে। শাড়ি-ডিজাইন তিনি করলেও ম্যানুফ্যাকচার তিনি করেননি বলেই দাবি করেছেন অগ্নিমিত্রা। শাড়ির দাম ভেন্ডাররাই ঠিক করেছেন বলে দাবি তাঁর।

লকেট চট্টোপাধ্যায়ের পর বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী পদে বসানো হয় ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পলকে। দলে সক্রিয়তা দেখাতে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে সামিল হতে পিছপা হননি তিনি। মহিলা মোর্চার সভানেত্রী হিসেবে তাঁর পারফরম্যান্স দলকে বেশ খুশিই করছিল। কিন্তু রাজনৈতিক কেরিয়ারের শুরুতেই বিতর্কে জড়ালেন অগ্নিমিত্রা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও