স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। রাজ্যের একাধিক জুটমিলে ব্যাহত হচ্ছে উৎপাদন প্রক্রিয়া। করোনার জেরে কাজকর্ম ব্যাহত হওয়ায় বহু শ্রমিকের বেতনেও কোপ পড়েছে। কেন্দ্র ও রাজ্যের আবেদন সত্ত্বেও বহু জুটমিল শ্রমিকদের বেতন মেটায়নি বলে অভিযোগ। বকেয়া বেতনের দাবিতে এবার উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ের কেলভিন জুটমিলের শ্রমিকরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বিক্ষোভে সামিল হলেন।

লকডাউনের সময় জুটমিল শ্রমিকদের বেতন না মেটানোয় কর্তৃপক্ষের উপর ক্ষোভে ফুঁসছে শ্রমিকরা। করোনা ভাইরাসের গোষ্ঠী সংক্রমণ রুখতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে লকডাউন জারি করা হয়েছে। গত ২৫ মার্চ থেকে বাংলায় লকডাউন চলছে। যার ফলে বহু কারখানায় উৎপাদন প্রক্রিয়া ব্যাহত হচ্ছে।

কারখানাগুলিতে উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় একাধিক বেসরকারি সংস্থায় কর্মীদের বেতনে কোপ পড়েছে। কর্মীদের অসহায় অবস্থার কথা ভেবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার মালিকপক্ষকে আবেদন করে লক ডাউনে কাজ না করলেও যাতে বেতন না কাটা হয়।

টিটাগড়ের কেলভিন জুটমিলের শ্রমিকদের অভিযোগ সরকারের আবেদন মানছে না কর্তৃপক্ষ। বেতন না পাওয়ায় তাঁদের সংসার চালানোই কঠিন হয়ে পড়েছে। বেতন না পেলে তাঁরা এই পরিস্থিতিতেও বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন।

বিভিন্ন জুটমিলের শ্রমিকদের বেতনের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছেন রাজ্যের জুটমিলগুলির সংযুক্ত শ্রমিক সংগঠন। উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড় কেলভিন জুটমিলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আন্দোলনে শামিল হন এই কারখানার স্বীকৃত ৮ টি শ্রমিক সংগঠনের সদস্যরা।

শ্রমিকদের স্বার্থে একজোট হয়ে মালিক পক্ষের কাছে এই জুটমিলে কর্মরত ২৫০০ শ্রমিকের পূর্ণ বেতনের দাবিতে জুটমিলের গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখান বিজেপির শ্রমিক সংগঠন বি এম এস, সিপিএমের শ্রমিক সংগঠন বি সি এম ইউ, কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আই এন টি ইউ সি-সহ অন্যান্যরা ।

তাদের একটাই দাবি, শ্রমিকদের লকডাউনের সময়ে টাকা মিটিয়ে দিক কারখানার ম্যানেজমেন্ট। তবে টিটাগড় কেলভিন জুটমিলের ম্যানেজমেন্ট জানিয়ে দিয়েছে, তারা শ্রমিকদের বর্তমান আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে এই জুটমিলের শ্রমিকদের ৪ হাজার টাকা অগ্রিম দেবে।

তবে পরবর্তী সময়ে কারখানায় উৎপাদন চালু হলে শ্রমিকদের থেকে অগ্রিম দেওয়া টাকা সাপ্তাহিক ৫০০ টাকা করে ম্যানেজমেন্ট কেটে নেবে। আপাতত কোনও পথ খোলা না থাকায় শ্রমিকেরা জুটমিলের এই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব