কলকাতা: জর্জ টেলিগ্রাফের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে শুক্রবার কলকাতা লিগে অভিযান শুরু করছে ইস্টবেঙ্গল। ডুরান্ডের প্রথম দু’ম্যাচে জয় দিয়ে শুরু হয়েছে মরশুম। তাই আত্মবিশ্বাসকে সঙ্গী করে মাঠে নামার কথা থাকলেও লিগের প্রথম ম্যাচের আগে খানিকটা অস্বস্তিতে লাল-হলুদ কোচ আলেজান্দ্রো মেনেন্দেজ।

জামশেদপুরের বিরুদ্ধে জোড়া গোল করলেও কাঁধের চোটে ১১ মিনিটে মাঠ ছেড়েছিলেন হাইমে কোলাডো। চোট গুরুতর না হলেও কলকাতা লিগের প্রথম ম্যাচে তাঁকে খেলানোর ঝুঁকি নেওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই। সেক্ষেত্রে বিশেষ চাপ না থাকলেও বোরহা গোমেজ, কাশিম আইদারাকেও লিগের প্রথম ম্যাচে পাচ্ছেন না লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ। কারণ ডুরান্ডের রেজিস্ট্রেশন হয়ে গেলেও কলকাতা লিগে খেলার ছাড়পত্র এখনও পাননি লাল-হলুদের এই দুই বিদেশি। স্বাভাবিকভাবেই বৃহস্পতিবার অনুশীলন শেষে সাইয়ের মাঠ থেকে বেরনোর সময় কিছুটা ক্ষুব্ধ ইস্টবেঙ্গল কোচ এড়িয়ে যান সাংবাদিকদের।

অতএব শুক্রবার আলেজান্দ্রোর হাতে বিদেশি বলতে হাতের পাঁচ মার্তি ক্রেসপি। তবে ক্রেসপি রক্ষণভাগ সামলালেও বিদেশিহীন মাঝমাঠ ও রক্ষণভাগ নিয়ে কিছুটা হলেও চিন্তায় থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক। স্বাভাবিকভাবেই হাওকিপ, বিদ্যাসাগর, পিন্টুকে তাই বৃহস্পতিবার আলাদাভাবে সময় দেন স্প্যানিশ কোচ। এদিকে লিগের প্রথম ম্যাচে লাল-হলুদ জার্সি গায়ে নিজেকে প্রমাণ করতে মরিয়া ক্রেসপি। ডুরান্ডের দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নেমে বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি। তবে ইস্টবেঙ্গল মাঠ নিয়ে ক্রেসপির কোনও সমস্যা নেই। আবহাওয়াই ফ্যাক্টর জানিয়ে দিলেন ডিফেন্সে চলতি মরশুমে বোরহার নয়া সঙ্গী।

লিগের প্রথম দু’ম্যাচ জিতে ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে নামার আগে আত্মবিশ্বাসী জর্জ টেলিগ্রাফ। আপফ্রন্টে কলকাতা ময়দানের সঙ্গে দীর্ঘদিন পরিচিত জোয়েল সানডে রয়েছেন গোলের মধ্যে। ডিফেন্সে ইচে কয়েক মরশুম আগে খেলে গিয়েছেন সবুজ-মেরুন জার্সি গায়ে। তবে শতবর্ষে কলকাতা লিগে ইস্টবেঙ্গলের প্রথম ম্যাচ। সমর্থক ভর্তি মাঠে জয়ের জন্য সর্বোতভাবে চেষ্টা করবে লাল-হলুদ। তাই প্রতিপক্ষকে বরাবরের মতো সমীহ করছেন জর্জ টেলিগ্রাফ কোচ রঞ্জন ভট্টাচার্য।

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার বাগান সমর্থকদের গুন্ডাগিরির ঘটনায় লজ্জিত মোহনবাগান কর্তারা। পড়শি ক্লাবে মেল করে দুঃখপ্রকাশ করার পাশাপাশি ভেঙে দেওয়া ইস্টবেঙ্গলের শতবর্ষের তোরণ পুনর্নিমাণের দায়িত্ব নিয়েছে মোহনবাগান কর্তৃপক্ষ।