স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: সোমবার সকালেই দিল্লী থেকে অণ্ডাল বিমানবন্দর। সেখান থেকে বর্ধমান সর্বমঙ্গলা মন্দির হয়ে টাউন হল। দুর্গাপুর বর্ধমান লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপির প্রার্থী ঘোষণা হওয়ার পর কার্যত পুরো শহর চসে বেড়ালেন সুরিন্দরজিত সিংহ আলুওয়ালিয়া।

আরও পড়ুন- ইস্তেহারে প্রতিশ্রুতির পুনরাবৃত্তি হয়েছে, মানছেন যোগী

আরও পড়ুন- ক্ষমতায় এলে সরকারি চাকরির পরীক্ষা দেওয়া যাবে বিনামূল্যে: রাহুল গান্ধী

সোমবার অন্ডাল বিমানবন্দরে আলুওয়ালিয়াকে স্বাগত জানাতে হাজির ছিকেন বিজেপির জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দী সহ বিজেপি নেতৃত্ব। বিমানবন্দর থেকে সকাল প্রায় সাড়ে এগারোটা নাগাদ আলুওয়ালিয়া হাজির হন বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দিরে। পুজো দেন। আর এখানেই সস্ত্রীক সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়াকে প্রার্থী হিসাবে পরিচয় করিতে দিতে শুরু করেন সন্দীপ নন্দী।

আরও পড়ুন- দলীয় পতাকা টাঙানো ঘিরে সংঘর্ষ বিজেপি-তৃণমূলের, বাইকে আগুন

 

আরও পড়ুন- রাম মন্দির নির্মাণে ফের মোদীকেই প্রধানমন্ত্রী চাইছে VHP

ভোটারদের কাছে সন্দীপবাবু জানান, প্রার্থীর সঙ্গে রয়েছেন বৌদি মণিকা আলুওয়ালিয়াও। সঙ্গে সঙ্গে বিজেপি জেলা সভাপতির ভুল ধরিয়ে দিয়ে আলুওয়ালিয়া বলেন দাদা বৌদি নয়। দিদি ও জামাইবাবু। বর্ধমানের জামাই হিসাবে পরিচয় দিতেই গর্ববোধ করেন তিনি। পাশাপাশি তিনি আরও জানিয়েছেন, বর্ধমানেই তিনি বর্ণপরিচয় থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা শেষ করেছেন। তিনি মনে প্রাণে বাঙালি তিনি।

আরও পড়ুন- মিড ডে মিলের বর্জ্য বাঁচিয়ে চলছে চাষ, নজির খুদে পড়ুয়াদের

এদিন সর্বমঙ্গলা মন্দিরে নারকেল ফাটিয়ে পুজো দেবার পর সেখান থেকে চলে যান বর্ধমানের তিনকোণিয়ার শ্রী গুরুনানক গুরুদুয়ারায়। সেখানে প্রার্থনা সেরে হাজির হন বর্ধমান শহরের শুলিপুকুরে। ওখান থেকে প্রথমে কিছুটা হেঁটে প্রচার শুরু করলেও কর্মীদের বিশৃঙ্খল চাপে তিনি হঠাতই কর্মীদের থেকে বেরিয়ে এসে দৌড়াতে শুরু করেন। খানিকটা দৌড়ে যাবার পর ঝাড়খণ্ড থেকে আনা জিপে চড়েই আলুওয়ালি মিছিল করেন টাউন হল পর্যন্ত।

আরও পড়ুন- শুধু মুসলিম নয়, পদ্ম চিহ্নে পড়ুক সব ধর্মের ভোট: আদিত্যনাথ