নয়াদিল্লি: মাসুদ আজহার এখন আন্তর্জাতিক জঙ্গি৷ তার দল জইশ ই মহম্মদ নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন৷ চলতি মাসের প্রথম দিনে জৈইশ প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি বলে ঘোষণা করেছে রাষ্ট্র সংঘ। ভারত ২০০৯ সাল থেকে এই দাবি করে আসছিল। একাধিকবার এই বিষয়ে রাষ্ট্র সংঘে ভারত দাবি জানিয়েছে৷ কিন্তু প্রতিবারই চিন ভেটো প্রয়োগ করার কারণে সম্ভবপর হয়ে ওঠেনি৷

তবে পরে সাফল্য আসে৷ আন্তর্জাতিক চাপের মুখে নতি স্বীকার করে ভেটো দেওয়া থেকে বিরত থাকে চিন৷ আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষিত হয় মাসুদ৷ বারবার মাসুদের পাশে দাঁড়ানো পাকিস্তানও তখন যথেষ্ট একঘরে৷ তবে ঢেঁকি বোধহ. স্বর্গে গেলেও ধান ভানে৷

নয়াদিল্লির হাতে এসেছে নয়া গোয়েন্দা রিপোর্ট৷ এই রিপোর্টে বলা হয়েছে নয়া জঙ্গি গোষ্ঠী তৈরি করছে পাকিস্তান৷ যার নাম দেওয়া হয়েছে জইশ ই মাতকি৷ আফগানিস্তানের সীমান্ত এলাকায় পাকিস্তানের ছায়ায় র্কমশ ডানা মেলছে সে সংগঠন৷ রিপোর্ট অনুযায়ী পাকিস্তানের মিরামশাহ শহরে বেশ কিছু ট্রেনিং ক্যাম্প খোলা হয়েছে৷ যেখানে নব্য জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ চলছে৷

আরও পড়ুন : আইএস হামলার নীল নকশায় কামাখ্যা মন্দিরের শহর গুয়াহাটি

উত্তর ওয়াজিরিস্তানের মিরামশাহ শহরটি আফগানিস্তান সীমান্ত থেকে মাত্র ৬০ কিমি দূরে৷ সেখান থেকে যুবকদের মগজ ধোলাই করা হচ্ছে৷ এই মিরামশাহ তালিবানদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত৷

জইশ ই মাতকি সংগঠনে ইতিমধ্যেই জঙ্গি নেওয়া শুরু হয়েছে৷ তাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ চলছে৷ বলা হচ্ছে ভারতে হামলা চালাতেই তালিবান যুবকদের এই প্রশিক্ষণ দিচ্ছে পাকিস্তান৷ ন্যাটো বাহিনী আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার পর এখন সেখানে ভালো মত সক্রিয় পাকিস্তানের আইএসআই৷ তারাই যুবকদের বাছাই করছে জঙ্গি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য৷ আর এর পুরোটাই হচ্ছে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে হামলা চালানোর লক্ষ্যে৷

২৯ এপ্রিল গোয়েন্দারা নয়াদিল্লিকে এই মর্মে সতর্ক করেন যে, ভারতে একদল জঙ্গি নতুন সংগঠনের নাম ছড়িয়ে দিতে প্রবেশ করতে পারে৷ কাশ্মীরি যুবকদেরও সেই সংগঠনে সামিল করা তাদের উদ্দেশ্য৷ পুলওয়ামার ধাঁচে হামলা চালানোই যাদের মূল লক্ষ্য৷ জইশ ই মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহার এই নয়া সংগঠনের যুবকদের তামিল দেওয়ার কাজে রয়েছে বলে খবর৷

আরও পড়ুন : রানওয়েতে পিছলে গিয়ে মুখ থুবড়ে পড়ল বাংলাদেশ বিমান

মাসুদ আজহারকে ব্ল্যাকলিস্টে ফেলার জন্য বারবার উদ্যোগ নিয়েছে ভারত। রাষ্ট্রসংঘের দ্বারস্থও হয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান বরাবরই মাসুদ আজহারকে বাঁচিয়ে দিয়েছে। সৌজন্যে রাষ্ট্রসংঘে চিনের ভেটো৷ সেই জঙ্গিনেতাকে নিষিদ্ধ করার জন্য ভারতের উপর শর্তও চাপিয়ে ছিল পাকিস্তান।

পুলওয়ামা হামলায় জইশের যোগ থাকার একাধিক প্রমাণ পেয়েছে ভারত। জইশের ঘাঁটিতে গিয়ে অভিযানও চালিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা। সেই জইশের প্রধানই মাসুদ৷ কিন্তু পাকিস্তানের দাবি ছিল, ভারতকে পুলওয়ামা কাণ্ড থেকে মাসুদ আজহারের নাম সরিয়ে নিতে হবে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।