ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: বেশ ক’দিন ধরে তার কোনও ‘খোঁজ’ মিলছিল না৷ সরকারিভাবে ঘোষণাও করা হয়েছিল- দক্ষিণবঙ্গের জঙ্গলে ‘সে’ নেই৷

কিন্তু সরকারের সেই ঘোষণাকে নাড়িয়ে দিয়ে মঙ্গলবারই গোপন আস্তানা থেকে লালগড়ের জঙ্গলে দেখা দিয়েছিল সে৷ বুধবার তার দেখা মিলল লালগড় লাগোয়া মেদিনীপুর শহরের অনতিদূরের বাঘঘরার জঙ্গলে৷

‘রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার’ থুড়ি বাঘ-মামাকে ঘিরে এমনই দাবি এলাকার বাসিন্দাদের৷ বন দফতর জানিয়েছে, এমন ‘খবর’ তাঁদের কাছেও এসেছে। এলাকায় একটি জন্তুর পায়ের ছাপ পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে বন দফতর৷

তবে সেটি খুবই অস্পষ্ট। ফলে সেটি বাঘের কিনা, তা-নিয়ে বনকর্তাদের মধ্যে প্রশ্ন রয়েছে। যদিও গ্রামবাসীদের দাবি, ওই ছাপ বাঘেরই! মেদিনীপুর বনবিভাগের জেলা বনাধিকারিক রবীন্দ্রনাথ সাহা বলেন , “ওই এলাকার একটু জন্তুর পায়ের ছাপ পাওয়া গিয়েছে৷ তবে মোরামের ওপর থাকায় সেটা খুবই অস্পষ্ট৷ ফলে বাঘের ছাপ কি না তা এখনই বোঝা যাচ্ছে না।”

মঙ্গলবার লালগড় শালবনি এলাকার অনেকেই শিকার করার উদ্দেশ্য নিয়ে জঙ্গলে গিয়েছিলেন। বাঘটি সেখানে লুকিয়ে থাকলেও তার কারণেই অন্য জায়গায় চলে গিয়ে থাকতে পারে বলেও মনে করছে বন বিভাগ। ফেব্রুয়ারির গোড়ার দিকে লালগড়ের মধুপুর জঙ্গলে বাঘের ঘুরে বেড়ানোর নিশ্চিত প্রমাণ পায় বন দফতর। সূত্রের খবর, ড্রোন ক্যামেরায় একটি অস্পষ্ট জন্তুর ছবি উঠেছিল৷ সেই ছবির সঙ্গে বাঘের অনেকখানি মিলও খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল৷

তবে বাঘটি কোথা থেকে, কীভাবে এসেছে তা স্পষ্ট নয়৷ ইতিমধ্যে লালগড়, গোয়ালতোড়, সারেঙ্গা , সিমলাপাল, মেদিনীপুর ব্লকের নানা জায়গায় বাঘের পদ চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। জঙ্গলে বাঘ ধরার জন্য ফাঁদ পাতা হলেও তাতে ধরা দেয়নি সে। বাঘের উপর নজরদারি চালাতে গিয়ে বন দফতরের গাড়িতেই আতঙ্কে, দম বন্ধ হয়ে মারা যান দুই বনকর্মী।

তারপরেও বাঘের দেখা মেলেনি। এবার এলাকার বাসিন্দারা আবার বাঘের দেখা পেয়েছেন বলে দাবি করার পরে এলাকায় নতুন করে বাঘের আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। আদৌ বাঘ নাকি বাঘের নামে গুজব ছড়িয়ে অন্য কোনও অশুভচক্র জঙ্গলমহলে নতুন করে ঘাঁটি গেড়ে অশান্তি তৈরি করতে চাইছে-প্রশাসন বিষয়টি খতিয়ে দেখছে৷