মুম্বই: গত সপ্তাহে মু্ক্তি পেয়েছে বাল ঠাকরে নিয়ে বায়োপিক ঠাকরে ৷ যা নিবেদন করেছেন শিবসেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউত৷ এই রাজনীতিবিদ তথা প্রযোজক এবার উদ্যোগী হয়েছেন প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জর্জ ফার্নান্ডেজকে নিয়ে ছবি করার৷ আর এই বায়োপিক পরিচালনার দায়িত্ব দিতে চান সুজিত সরকারকে৷

সদ্যই প্রয়াত হওয়া এই প্রতিরক্ষামন্ত্রীর জীবন বর্ণময়। ১৯৫০ সালের শ্রমিক নেতা থেকে ’৭৫-এর জরুরি অবস্থা সময় ইন্দিরা-বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মুখ ছিলেন জর্জ। মোরারজি দেশাইয়ের জনতা সরকারের শিল্পমন্ত্রী হয়ে কোকাকোলা তাড়িয়েছিলেন ৷ আবার বাজপেয়ী মন্ত্রিসভার প্রতিরক্ষামন্ত্রী থাকাকালীন কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পদত্যাগ করেন।

তবে এই বায়োপিক ১৯৫০-৭৫ অর্থাৎ জর্জের অর্থাৎ শ্রমিক নেতা থেকে জাতীয় রাজনীতিতে বিরোধী মুখ হিসেবে উত্তরণের কাহিনি তুলে ধরা হবে।

এই প্রসঙ্গে সঞ্জয় রাউত জানিয়েছেন, সুজিত তাঁর খুব ভাল বন্ধু। তাই এই বায়োপিক বানাতে ওনার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে চান। প্রাথমিক ভাবে ভাবা হয়েছে হিন্দি ও মারাঠী দুই ভাষায় ছবিটি করার৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।