ছবি- প্রতীকী

লখনউ: তিন তালাক এবং হালালার ঘটনায় ফের একবার উত্তাল উত্তরপ্রদেশ৷ এক ব্যক্তি তাঁর প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে ঘরছাড়া করে, ফের তাকে বিয়ে করার জন্য নিজের বাবার সঙ্গে নিকাহ হালালা করায় সেই মহিলাকে৷ এখানেই শেষ নয়৷ সেই স্ত্রীকে ফের তালাক দিয়ে এবার ভাইয়ের সঙ্গে নিকাহ হালালার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে সেই মহিলাকে, আর এমনি এক ঘটনায় যোগীর রাজ্যের পরিস্থিতি উত্তপ্ত৷

জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশে বরেলির বানখানার বাসিন্দা ওই মহিলার সঙ্গে ২০০৯ সালে বিয়ে হয়েছিল গড়ি-চৌকির বাসিন্দা ওয়াসিমের৷ মহিলার অভিয়যোগ, দু বছর পরে তাঁর স্বামী তাকে তালাক দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়৷ কয়েক মাস পরে ফের তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনার জন্য সেই ব্যক্তি তার বাবার সঙ্গে প্রাক্তন স্ত্রীয়ের বিয়ে দিয়ে দেয় যাতে নিকাহ হালালর পর্ব সম্পন্ন হতে পারে৷ এরপর শ্বশুর তালাক দিলে, ওয়াসিম ফের তাকে বিয়ে করে৷ কিন্তু তাদের মধ্যে সমস্যা চলতে থাকায় ফের স্ত্রীকে তালাক দেয় ওয়াসিম৷ তার ওপর অত্যাচার করে তাকে তালাক দিয়ে ২০১৭ সালে বাড়ি থেকে ফের বের করে দেয় সে৷

পড়ুন: বিদেশের মাটিতে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ভারতীয়

আর এবার সে ফের ফিরে পেতে চাইছে তার প্রাক্তন স্ত্রীকে৷ তবে এবার বাবা নয়, নিকাহ হালালার জন্য ভাইকে বেছে নিয়েছে ওয়াসিম৷ তারপরে ফের তাকে বিয়ে করে নিজের কাছে রাখতে ইচ্ছুক সে৷ কিন্তু এবার বেঁকে বসেছে তার প্রাক্তন স্ত্রী৷ তার শর্ত মানতে সে অস্বীকার করে এবং আলা হজরত হেলপিং সোসাইটির প্রধান নিদা খানকে তাঁর করুণ পরিস্থিতির কথা জানায়৷ এরপর নির্যাতিতা সংবাদ মাধ্যমেও তাঁর অবস্থার কথা জানায়৷ আর ঘটনার কথা জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ফের একবার শিরোনামে যোগীর রাজ্য৷