কলকাতা, ১৮ নভেম্বর: পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের পর এবার দাপুটে তৃণমূল নেতা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককেও ‘বাচ্চা ছেলে’ বলে তাচ্ছিল্যই করলেন হেভিওয়েট বিজেপি নেতা মুকুল রায়। শুক্রবার বর্ধমানের এক অনুষ্ঠান থেকে মুকুল রায়কে আক্রমণ করেছিলেন খাদ্যমন্ত্রী৷ তারই জবাবে এদিন তাঁকেও ‘বাচ্চা ছেলে’ বলে কটাক্ষ করেন তৃণমূলের এক সময়ের ‘সেকেণ্ড ইন কম্যাণ্ড’৷

আরও পড়ুন: লড়তে হবে, তাড়াতাড়ি সুস্থ হও! বার্তা নিয়ে লকেটের বাড়িতে মুকুল

শনিবার বিজেপির রাজ্য দফতরে সংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মুকুল বলেন, ‘‘জ্যোতিপ্রিয় বাচ্চা ছেলে। নাবালক৷ কয়েকদিন হল উত্তর ২৪পরগনায় গেছে। ওর অভিযোগের কোনও জবাব দেব না। যা বলার,  যেখানে বলার সব পরে বলব।” প্রসঙ্গত মঙ্গলবার বর্ধমানের এক অনুষ্ঠান থেকে পিতা-পুত্রের ‘গোপন আতাঁত’ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন খাদ্যমন্ত্রী৷

আরও পড়ুন: মমতাকে হারাতে মহিলা মোর্চাই ভরসা মুকুলের

মুকুল রায়কে আক্রমণ করে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ‘‘মুকুল রায়ের মাথায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত না থাকলে ওঁকে কেউ চিনত না। জামাপ্যান্ট ছাড়া মুকুল রায়ের কিছু নেই। ফলে ওঁর দল ছাড়াটা তৃণমূলের কাছে কোনও ফ্যাক্টর নয়। দেখুন না মুকুল রায়ের কী পরিণতি হয়।”

এরপরই পিতা-পুত্রের ‘গট আপ’ গেমের দিকে ইঙ্গিত করে খাদ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘‘শুভ্রাংশু বিজেপিতে যেতেই পারেন, আপত্তি নেই। বাবা-ছেলের লড়াই,এটা বিশ্বাস করা যায় না। একজন তৃণমূলে আরেকজন বিজেপিতে থেকে লুকোচুরি খেলা করছেন৷’’ ‘‘এই খেলা বেশিদিন নয়। ধরা পড়ে যাবে।’’ বলেও দাবি করেন জ্যোতিপ্রিয়৷

আরও পড়ুন: এপ্রিলেই রাজস্থান থেকে রাজ্যসভায় ফিরছেন মুকুল রায়

এবিষয়েই এদিন জ্যোতিপ্রিয়কে কার্যত তাচ্ছিল্যর সুরে ‘বাচ্চা ছেলে’ বলে কটাক্ষ করেন মুকুল রায়৷ এর আগে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও বাচ্চা ছেলে বলে কটাক্ষ করেছিলেন মুকুল৷ এদিন ডেঙ্গু প্রসঙ্গেও নাম না করে মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধেছেন মুকুল৷ তাঁর কথায়, ‘‘রাজ্য সরকার ডেঙ্গু সম্পর্কিত তথ্য গোপন করছে। অথচ রাজ্যে ডেঙ্গু মহামারির আকার ধারণ করেছে। সরকারের উচিত, তথ্য গোপন না করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।’’

আরও পড়ুন: বাংলায় হিংসার রাজনীতি এনেছে বামেরাই : দিলীপ ঘোষ

আর শুভ্রাংশু প্রসঙ্গে তাঁর সাবধানি মন্তব্য, ‘‘শুভ্রাংশু সাবালক। তাই সে কোন দলে থাকবে সেটা তাঁর ব্যাপার।’’ শুভ্রাংশু অসুস্থ, তাঁর চিকিৎসা চলছে-বলেও জানান মুকুলবাবু। ‘‘বাচ্চা ছেলে’ বলে তাচ্ছিল্য করার জবাবে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক কি বলেন, সেদিকেই তাকিয়ে তিলোত্তমার রাজনৈতিক মহল৷

আরও পড়ুন: মেয়রের বিয়ে বাঁচাতে ‘ঘটক’ মমতাই কি শেষ ভরসা ?

- Advertisement -