মুম্বই: দয়া করে ঘরে থাকুন। ঘরে থেকেই বোধহয় পুলিশকর্মীদের যোগ্য সম্মান জানানো সম্ভব। মুম্বই পুলিশকে কুর্নিশ জানিয়ে এমনটাই টুইট করলেন ‘হিটম্যান’। লকডাউন পিরিয়ডে মুম্বই পুলিশের কাজে অভিভূত হয়ে দিনকয়েক আগে কুর্নিশ জানিয়ছিলেন জাতীয় দলের অল-রাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া। আর এবার মুম্বই পুলিশের হয়ে ব্যাট ধরলেন ‘হিটম্যান’।

বর্ধিত হতে চলেছে দেশে লকডাউন পিরিয়ডের মেয়াদ। গতকাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে সেই ইঙ্গিত একেবারেই পরিষ্কার। অন্যান্য কয়েকটি রাজ্যের সঙ্গে ইতিমধ্যেই লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি করেছে মহারাষ্ট্র সরকার। করোনা রুখতে দেশের জন্য সেরা দাওয়াই বোধহয় এটাই। কিন্তু লকডাউন পিরিয়ডে গৃহবন্দি যখন আপামর দেশবাসী। তখন দিনরাত এক করে পরিশ্রম করে চলেছেন পুলিশকর্মীরা। ব্যতিক্রম নয় বাণিজ্যনগরীর খাঁকি উর্দিধারীরাও।

সেই পুলিশকর্মীদের কুর্নিশ জানিয়ে শনিবার টুইটারে রোহিত লেখেন, ‘ঘড়ির কাঁটা এক করে পরিশ্রমের জন্য মুম্বই পুলিশ তোমাদের কুর্নিশ। শহরের প্রত্যেকটা প্রান্তে চলছে মুম্বই পুলিশের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা। আমাদেরও কর্তব্য ছোট্ট একটা কাজ করে তাদের পাশে দাঁড়ানোর। শুধুমাত্র বাড়িতে থাকুন।’

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী করোনা ভাইরাসে এখনও অবধি সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ মহারাষ্ট্র। আক্রান্ত ১,৭৫০ জনেরও বেশি। রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ১৩০ জন মানুষের। দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। মারণ ভাইরাসে এদেশে প্রাণ হারিয়েছেন সাতশোরও বেশি মানুষ। এমন সংকটের মুহূর্তে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি পুলিশকর্মীদের ভূমিকা সত্যিই বাহবাযোগ্য।

দিনদু’য়েক আগে একইভাবে মুম্বই পুলিশকে কুর্নিশ জানিয়েছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। বৃহস্পতিবার মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে মুম্বই পুলিশের একটি ভিডিও পোস্ট করেন হার্দিক। ক্যাপশন হিসেবে জাতীয় দলের অল-রাউন্ডার লেখেন, ‘মুম্বই পুলিশকে অনেক ভালোবাসা এবং শুভ কামনা এবং অন্যান্য আধিকারিকদের যারা দেশজুড়ে আমাদের সুরক্ষার কাজে নিযুক্ত।’

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় শহরের মানুষকে গৃহবন্দি থাকার বার্তা দিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করে মুম্বই পুলিশ। মুম্বই পুলিশ ক্যাপশন হিসেবে সেই ভিডিওতে লেখে, ‘একটানা লকডাউনে বাড়িতে থেকে ক্লান্ত? ভাবুন তো আমরা বাড়ি থাকলে কী করতাম।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ