নয়াদিল্লি: অ্যাপ ক্যাব সংস্থা উবেরে কর্মী ছাঁটাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু। উবের ইন্ডিয়া এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে ভারতের মোট কর্মীসংখ্যার মধ্যে ৬০০ জনকে বরখাস্ত করা হবে। যা তাদের মোট লোকবলের ২৫ শতাংশ। বিভিন্ন বিভাগ থেকে এই ছাঁটাই হবে বলে জানা গিয়েছে। করোনা সংক্রমণের জেরে বড়সড় প্রভাব পড়েছে পরিবহণ ব্যবসায়। এর জেরেই ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত সংস্থার।

দেশ জুড়ে চতুর্থ দফার লকডাউন চলছে। প্রায় দুমাস ধরে বন্ধ ব্যবসা। তবে যে সব কর্মীকে ছাঁটাই করা হচ্ছে, তাঁদের ১০-১২ সপ্তাহের বেতন দেওয়া হবে। ছাঁটাইয়ে দিন থেকে পরবর্তী ছয় মাস পর্যন্ত চিকিৎসা সংক্রান্ত যাবতীয় খরচ বহন করবে কোম্পানি বলে জানানো হয়েছে। উবের ইন্ডিয়ার প্রেসিডেন্ট প্রদীপ পরমেশ্বরন জানিয়েছেন কোভিড ১৯-এর জেরে চলা লকডাউনে রীতিমত ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সংস্থার ব্যবসা। কতদিনে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, জানা নেই। তাই বাধ্য হয়েই ছাঁটাইয়ের রাস্তায় হাঁটতে হয়েছে উবেরকে।

তবে লকডাউনের জেরে শুধু উবেরই নয়, কর্মী ছাঁটাই করেছে ওলাও।গত সপ্তাহেই ১৪০০ কর্মীকে ছাঁটাই করেছে অ্যাপ ক্যাব সংস্থা ওলা। গত দু মাসে ওলার আয় নেমে গিয়েছে ৯৫ শতাংশ। কর্মী ছাঁটাই করেছে অ্যাপ নির্ভর ফুড ডেলিভারি সংস্থা জোম্যাটো, সুইগি। জোম্যাটোর তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, ১৩ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করা হবে।

এখানেই শেষ নয়, যে সমস্ত কর্মীরা কাজ করবে তাঁদের বেতন ৫০ শতাংশ কাঁটা হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই ইস্যুতে কর্মীদের উদ্দেশে একটি নোট লেখেন Zomato-র প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও দীপিন্দর গোয়েল। সেখানে তিনি এই বিষয়ে বিস্তারিত লিখেছেন।

সেখানে তিনি বলেছেন, বিগত কয়েক মাস অনেক কিছু বদলে গিয়েছে। ব্যবসার ধরণও বদলে গিয়েছে। ম্যানেজমেন্ট যেখানে Zomato-কে আরও কেন্দ্রীভূত করতে চাইছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে অনেক কর্মীরই বেশি কাজ নেই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।