নয়াদিল্লি:কোনও রকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না কর্পোরেট জগৎ বরং‘সেফ গেম’ খেলতে চাইছে ৷ তাই দেশের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ছাত্র-ছাত্রীদের উপর মুখঢাকা দুস্কৃতিদের হামলার প্রতিবাদে ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে দাঁড়ানোয় তাঁর বিজ্ঞাপন প্রদর্শনে প্রভাব পড়ছে ৷ একটি সর্বভারতীয় সংবাদপত্রের প্রতিবেদন সেই বার্তাই দিতে দেখা গেল ৷

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোনও কোনও ব্যান্ড আপাতত স্বল্প মেয়াদে ওই অভিনেত্রীর করা বিজ্ঞাপনের প্রদর্শন কমিয়ে দিচ্ছে ৷ সেলিব্রিটি ম্যানেজারদের বক্তব্য,ভবিষ্যতের চুক্তি অনুমোদন অনেকটাই নির্ভর করছে এই অভিনেত্রীর রাজনৈতিক অবস্থানের জেরে প্রশাসনের ক্ষোভ কতটা প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে পড়ে তার উপর৷

বড় বড় ব্র্যান্ড নিয়ে কাজ করা এক কর্তার বক্তব্য, সব সময়ই তাদের মাথায় রাখতে হয় যাতে ব্রান্ড নিরাপদে থাকে এবং কোনও রকম বিতর্কে না জড়ায়৷ বর্তমানে দীপিকা পাড়ুকোনের নেট সম্পদ ১০৩ কোটি টাকা ৷ অ্যাক্সিস ব্যাংক, ভিসতারা এয়ালাইন্স, তানিশক, ব্রিটানিয়া সব ২৩ ব্র্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তিনি ৷ টুইটারে তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা ২৬.৮ মিলিয়ন৷

জওহরলাল নেহরু ইউনিভার্সিটিতে ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের উপর হামলার পর থেকেই উত্তাল দেশ।ওই হামলার পর থেকেই জায়গায় জায়গায় চলছে প্রতিবাদ। সেই সময় আবার ‘ছপক’ ছবির প্রোমোশনের ব্যস্ততা কাটিয়েই দীপিকা গাড়ি নিয়ে সোজা জেএনইউ-তে চলে যান। তখন সেখানে ছিলেন কানহাইয়া কুমার, ঐশী ঘোষ। বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে ছাত্রছাত্রীদের কথা শোনেন তিনি।জেএন ইউ ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি সহানুভূতি দেখান৷

যদিও দীপিকার অমন আচরণের জন্য দেশজুড়ে বিতর্ক দানা বাধে ৷ অনেকেই তাঁর প্রশংসা করেন৷ এমন কথাও বলা হয়, বলিউডের নায়কেরা যে সাহস দেখাতে পারেননি তিনি নায়িকা হয়ে তা করে দেখিয়ে দিলেন৷ উল্টোদিকে আবার বিজেপি সমর্থকেরা তাঁর ছবি বয়কটের ডাক দেয়৷ এবার কর্পোরেট জগতও দীপিকার ব্যাপারে ‘সেফ গেম’ খেলতে চাইছে বলে বার্তা দিল৷

তবে বিজেপি বয়কটের ডাক দিলেও ছপক ছবিটি মুক্তির পর প্রথম দুদিনে ১১.৬৭ কোটি টাকা তুলেছে ৷ শুক্রবার ৪.৭৭ কোটি টাকা শনিবার ৬.৯০ কোটি টাকা এসেছে ৷ এই প্রবণতা থাকলে রবিবার নয় কোটি টাকা আসবে বলে আশা করা হয়েছিল৷ ছবিটি তৈরির খরচ ৪০ কোটি টাকা ৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ