লন্ডন: অজি পেসারদের আগুনে পেসের সামনে মঙ্গলবার ইংল্যান্ডের আশা-নিরাশা দোদুল্যমান ছিল তাঁর ব্যাটে। কিন্তু মিচেল স্টার্কের বিষাক্ত ইনসুইং ইয়র্কারে তিনি ঠকে যেতেই ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ ‘অ্যাশেজ’ জয়ের স্বপ্ন ধুলোয় মিশে যায় ব্রিটিশদের। তাই আউট হওয়ার পর মাঠেই হতাশার অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন বেন স্টোকস। তবে ম্যাচ হারের পর মুষড়ে না পরে ভারতের বিরুদ্ধে পরবর্তী ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর হুঙ্কার ইংরেজ অল-রাউন্ডার গলায়।

মঙ্গলবার লর্ডসে থ্রি-লায়ন্সদের ৬৪ রানে পরাস্ত করে প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের সেমিতে পৌঁছল অস্ট্রেলিয়া। অন্যদিকে টানা দু’ম্যাচ হেরে ঘরের মাঠে বিশ্বক্রিকেটের মেগা মঞ্চে ব্যাকফুটে ‘ফেভারিট’ ইংল্যান্ডই। পরিস্থিতি এমন অবস্থায় দাঁড়িয়ে যেখানে নক-আউট নিশ্চিত করতে গ্রুপ লিগের বাকি দুই ম্যাচ জিততেই হবে ব্রিটিশদের। এমন অবস্থায় রবিবাসরীয় এজবাস্টনে টিম ইন্ডিয়ার মুখোমুখি তাঁরা। আর মেন ইন ব্লু’র মুখোমুখি হওয়ার আগে বেন স্টোকসের বিশ্বাস, গত বছর ঘরের মাঠে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে ভারতের বিরুদ্ধে জয় এই ম্যাচে ইংল্যান্ডকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে।

পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দুরমুশ হয়েও ব্রিটিশ অল-রাউন্ডারের গলায় হুঙ্কারের সুর। মঙ্গলবারের ম্যাচ হারের পর দলের অস্তিত্ব সংকটে হলেও বেন স্টোকস বলছেন ‘এই বিশ্বকাপ আমাদের’। পাশাপাশি স্টোকসের কথায় ভারতের বিরুদ্ধে আমাদের হোম রেকর্ড যথেষ্ট ভালো। সুতরাং আত্মবিশ্বাসকে সঙ্গী করেই যে ভারতের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে দল, স্পষ্ট স্টোকসের বার্তায়। তাই ভারত যে টুর্নামেন্টে দুরন্ত ফর্মে সে কথা মাথায় রেখেও নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দেওয়ার ডাক দিয়েছেন বেন।

অভিজাত লর্ডসে মঙ্গলবার প্রথমে ব্যাট করে দলনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের শতরানের সৌজন্যে ইংল্যান্ডকে ২৮৬ রানের লক্ষ্যমাত্রা ছুঁড়ে দেয় অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু ইংরেজদের ম্যাচ জয়ের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় অজি পেসার জেসন বেহরনড্রফের বিধ্বংসী স্পেল। তাঁর ৫ উইকেটের পাশাপাশি দোসর মিচেল স্টার্কের ৪ উইকেটে ৪৪.৪ ওভারে মাত্র ২২১ রানেই গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ডের ইনিংস। দলের ব্যাটসম্যানদের হারাকিরির মাঝে ইংরেজ শিবিরে ব্যাট হাতে একমাত্র উজ্জ্বল বেন স্টোকস। তাঁর ১১৫ বলে ৮৯ রানের ইনিংসে কিছুটা আশার আলো দেখলেও শেষরক্ষা হয়নি।

স্টার্কের ইয়র্কারে বোল্ড হওয়ার পর এদিন মাঠেই ব্যাট ছুঁড়ে ফেলেন স্টোকস। এরপর ব্যাটে লাথি মেরে হতাশার অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন ইংরেজ অল-রাউন্ডার। তবে শ্রীলঙ্কা, অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরপর দু’ম্যাচ হেরেও স্টোকস জানাচ্ছেন, ‘পিছনে তাকানোর প্রশ্নই নেই। পরিস্থিতি আমাদের ভিন্নভাবে ভাবাতে বাধ্য করালেও আমরা আমাদের স্বাভাবিক খেলা থেকে সরবো না।’