বেইরুট: অস্থির হয়ে পড়ছে বিস্ফোরণ পরবর্তী লেবানন। জরুরি অবস্থা জারি করে বিস্ফোরণের তদম্ত স্বার্থে সরকারি কর্মীদের ধরপাকড় শুরু হয়েছে।একের পর এক বন্দর কর্মকর্তাদের গৃহবন্দি করার অভিযানে প্রবল সরকার বিরোধী ক্ষোভ চাগিয়ে উঠেছে।

গত মঙ্গলবার রাজধানী বেইরুটে সরকারি গোডাউনে বিস্ফোরণ হয়। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ৫ হাজার মানুষ জখম। বিষাক্ত অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটের অতিরিক্ত মজুত করা হয়েছিল বেইরুট বন্দরে। সেই গোডাউন বিস্ফোরণের পর থেকেই । ধংসস্তূপে পরিণত হওয়। বেইরুটে সরকার বিরোধী ক্ষোভ বাড়ছিল।

আল জাজিরার খবর, সাধারণ লেবানিজদের অভিযোগ, সরকারের দুর্নীতি, অব্যবস্থা ও অবহেলার কারণেই এমন বিস্ফোরণ ঘটেছে। এদিকে বন্দর কর্মকর্তাদের গৃহবন্দি করার অভিযানে নেমেছে পুলিশ ও সেনা। অন্তত ১৬ জনকে বন্দি করা হয়েছে।

জনগণের একাংশ রাস্তায় নেমে শুরু করেছেন অবরোধ। এর জেরে বেইরুট এখন অবরুদ্ধ নগরী।বিবিসি জানিয়েছে, লেবাননের পার্লামেন্টের কাছে সরকারের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেছেন অনেকেে। বিক্ষোভকারীদের দিকে কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়ছে পুলিশ।

সিএনএন এবং গাল্ফ নিউজ জানাচ্ছে, বিক্ষোভকারীরা রাস্তার মোড়ে মোড়ের অবরোধ করেছেন।আগুন ধরিয়ে, দোকান ভাঙচুর করেছেন অনেকে।বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে কয়েকজন জখম।

প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন জানান, বেইরুট বন্দর এলাকার একটি গোডাউনে ২ হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটের মতো বিস্ফোরক রাখা হয়েছিল। সেখানেই ভায়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। কাস্টমস প্রধান জানান, রাসায়নিক সরিয়ে নিতে বারবার বলার পরও তা সরানো হয়নি।

এই অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট সাধারণত সার ও বোমা তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। ইংল্যান্ডের শেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানিয়েছেন, বেইরুটের বিস্ফোরণের মাত্রা হিরোশিমা শহরে পরমাণু বোমা বিস্ফোরণের ১০ ভাগের ১ ভাগ। বিস্ফোরণে প্রায় তিন লক্ষ মানুষ গৃহহীন। ক্ষয়ক্ষতি ৩০০ থেকে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার বা তার বেশিও হতে পারে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা