রাইপুর, ছত্তিশড়: অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গের পর এবার ছাত্তিশগড়৷ সিবিআই ও অন্য কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে রাজ্যে তদন্ত করতে আসার আগে রাজ্য সরকারের অনুমতি নিতে হবে। বাতিল করে দেওয়া হল সিবিআইকে দেওয়া ছত্তিশগড় সরকারের জেনারেল কনসেন্ট। কেন্দ্রের উপর চাপ সৃষ্টি করতেই ভূপেশ বাঘেল সরকারের এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: শিক্ষাক্ষেত্রে শৃঙ্খলা ফেরাতে রিভিউ বৈঠকের ডাক রাজ্য সরকারের

রাজ্যের অনুমতি ব্যাতীত এবার থেকে আর ছত্তিশগড়ে সিবিআই তদন্ত, তল্লশি চালাতে পারবে না৷ নোটিফিকেশন জারি করেছে রাজ্য৷ ইতিমধ্যেই বিষয়টি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রককে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ছত্তিশগড়ের বাঘেল সরকারের পক্ষ থেকে৷

অন্ধ্র, বাংলার পর এবার সিবিআই তদন্তে ‘না’ ছত্তিশগড়ের

সিবিআই ও অন্য কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে রাজ্যে তদন্ত করতে আসার আগে রাজ্য সরকারের অনুমতি নিতে হবে৷ বিস্তারিত জানাচ্ছেন আমাদের প্রতিনিধি Rajit Dasপ্রতিবেদনটি পড়তে ক্লিক করুন http://bit.ly/2TJwIGd

Kolkata24x7 यांनी वर पोस्ट केले गुरुवार, १० जानेवारी, २०१९

নরেন্দ্র মোদি সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে সিবিআই স্বাধীনতা হারিয়েছে। কেন্দ্র মিথ্যে অভিযোগ তুলে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সিবিআইকে ব্যবহার করছে৷ অভিযোগ বিজেপি বিরোধী সব রাজনৈতিক দলগুলির৷ সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে মায়াবতী ও অখিলেশ কুমার যাদব আসন্ন লোকসভায় জোটের পরিকল্পনা করেন৷ তারপরই সংশ্লিষ্ট রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশের বিরুদ্ধে সিবিআই তল্লাশির খবর সামনে আসে৷ ফলে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সিবিআইকে দিয়ে বিরোধীদের দমনের অভিযোগ পোক্ত হয়৷

আরও পড়ুন: পাক যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘনে আহত সেনা-জওয়ান

লোকসভা ভোট যত এগিয়ে আসবে কেন্দ্রের দমন পীড়ন ততই বাড়বে বলে আশঙ্কা বিরোধীদের৷ ফলে কংগ্রেস পরিচালিত ছত্তিশগড় সরকারের এই পদক্ষেপ বলে মনে করছে রাজনৈতির বিশ্লেষকরা৷

পথ দেখান অন্দ্রের চন্দ্রবাবু নাইডু সরকার৷ সে রাজ্যে আগে থেকে অনুমতি না নিয়ে সিবিআই কোনও তদন্ত বা তল্লাশি করতে পারবে না। কারণ, চন্দ্রবাবু রাজ্যের তরফে সিবিআইকে দেওয়া ‘জেনারেল কনসেন্ট’ বা সামগ্রিক অনুমতি প্রত্যাহার করে নেন। অন্ধ্র সরকার গত ৮ নভেম্বর নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দেয়, এবার থেকে কোনও মামলায় তদন্ত, তল্লাশি, গ্রেফতার, জিজ্ঞাসাবাদ বা অন্য যে কোনও কাজের জন্য সিবিআই-কে আগাম অনুমতি নিতে হবে। সরকার অনুমতি দিলে তবেই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার গোয়েন্দারা অন্ধ্রপ্রদেশে কাজ করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: অভিজাত মলে রমরমিয়ে চলা দেহব্যবসার পর্দাফাঁস

টিডিপি প্রধান চন্দ্রবাবুর অভিযোগ কেন্দ্র রাজনৈতির প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই গোয়েন্দা সংস্থাগুলিতে কাজে লাগাচ্ছে৷ সিবিআই নেতৃত্বের বিবাদ প্রকাশ্যে আসতেই যা আরও স্পষ্ট হয়৷ ফলে সিবিআইকে আটকে কেন্দ্র বিরোধীতার এও এক কৌশল অবলম্বন করা হয়৷

সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে অন্ধ্রের এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মোদী সরকার কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে ব্যবহার করে ইচ্ছাকৃতভাবে অফিসারদের হয়রানি, ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন বলে অভিযোগ ছিল বিজেপি বিরোধী প্রস্তাবিত জোটের এই কারিগরের৷ মোদীকে সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত করতেই ১৯৮৯ সালে দেওয়া জেনারেল কনসেন্ট প্রত্যাহার করে নেয় পশ্চিমবঙ্গ সরকার৷

আরও পড়ুন: এক ধাক্কায় কলকাতায় ১২, স্বাভাবিকের নীচে তাপমাত্রা

অন্ধ্র, পশ্চিমবঙ্গের পথে হেঁটে এবার কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতের পথে কংগ্রেস পরিচালিত ছত্তিশগড়ও৷ এই পদক্ষেপ প্রস্তবিত জোট শরিকদের প্রতি ‘হাত’ শিবিরের বার্তা বলেও মনে করা হচ্ছে৷