কাবুল: কেটে গিয়েছে ১৫ দিন৷ এখনও খোঁজ নেই আফিগানিস্তানে অপহৃত ৭ ভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারের৷ ৭ ভারতীয়কে অপহরণ করেছে তালিবান৷ কিন্তু তালিবানদের কোন ঘাঁটিতে রয়েছেন অপহৃতরা তা এখনও পরিষ্কার নয়৷ অপহৃতরা সুরক্ষিত বলে জানাচ্ছে আফগান প্রশাসন৷ কিন্তু, তালিবানের ঘাঁটিতে কতটা সুরক্ষিত, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে৷

ভারতীয়েদর অপহরণের পর ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে আফগান বিদেশমন্ত্রক৷ আফগান প্রশাসনের আশ্বাস, অক্ষত অবস্থায় দেশে ফিরবেন ৭ ভারতীয়৷ তালিবানদের সঙ্গে কথা বলতে মধ্যস্থতাকারীদের সাহায্য নেবে আফগান প্রশাসন বলেও জানা যাচ্ছে৷ আফগান প্রশাসন সূত্রের খবর, যুদ্ধবিধ্বস্ত এলাকাতেই ভারতীয়দের রাখা হয়েছে৷ আফগান প্রশাসনের দাবি, ভারতীয়দের ফেরাতে মধ্যস্থতাকারীদের সঙ্গে কথাও বলা হয়েছে৷

তালিবানদের সঙ্গে রফাসূত্র বার করার প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে৷ ভারতের বিদেশমন্ত্রককেও এই সংক্রান্ত তথ্য প্রত্যেক মূহুর্তে দিচ্ছে আফগানিস্তান৷ ভারতীয় ইনজিনিয়ারদের কোথায় রাখা হয়েছে, সেই নিয়ে সংশয় তৈরি হোলেও, কয়েকটি বিষয়ের উপর নজর রাখছে ভারতও৷ বিদেশমন্ত্রক জানাচ্ছে, ৬ মে বাগলান থেকে অপহৃত হন ভারতীয়রা৷ তাই, বাগলানের চেশমা-এ-সের এলাকায় তাদের রাখার সম্ভাবনা রয়েছে৷

ভারতীদের অপহরণ নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গেও কথা বলেছে ভারত৷ মস্কোয় মোদী-পুতিন বৈঠকেই অপহরণের কথা জানান হয়েছে৷ ভারতীয়দের অপহরণ বিষয়ে আন্তর্জাতিক দুনিয়াকে অবগত রাখতেই রাশিয়াকে বিষয়টি জানান হয়৷ অপহরণের পর থেকেই স্থানীয়দের মাধ্যমে তালিবানদের সঙ্গে কথা বলছে আফগান প্রশাসন৷ ভারতীয় ইঞ্জিনিয়াদের আফগান সরকারের কর্মী মনে করেই অপহরণ করা হয়৷ স্থানীয়দের মারফত প্রশাসনকে এমনই জানায় তালিবানরা৷ আপাতত, তালিবানদের কবল থেকে ভারতীয়দের বাঁচাতে থুব সন্তর্পনেই পা ফেলছে ভারত-আফগানিস্তান৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I